রিমান্ড শেষে কুমিল্লা কারাগারে আম্মান সিদ্দিকী # পাওয়া গেছে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য

অবান্তিকার আত্মহত্যা :
স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ৩ মাস আগে

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) শিক্ষার্থী ফাইরুজ সাদাফ অবন্তিকা ‘আত্মহত্যা’র ঘটনায় গ্রেফতার বিশ্ববিদ্যালয়ের সহপাঠী আম্মান সিদ্দিকী দুই দিনের রিমান্ড শেষে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে। বুধবার (২০ মার্চ) কুমিল্লার সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. আবু বকর সিদ্দিক এ আদেশ দেন। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন মামলার রাষ্ট্রপক্ষের সহকারী কৌঁসুলি আইনজীবী রফিকুল ইসলাম হিরা।

জানা যায়, বুধবার(২০ মার্চ) দুপুর ১টায় কালো মাইক্রোতে করে পুলিশের প্রায় ১০ সদস্যের একটি দলের নিরাপত্তা বলয়ে আম্মান সিদ্দিকীকে কুমিল্লা কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে আদালতে আনা হয়। এ সময় তার মুখে মাস্ক পরা ছিল।

আইনজীবী রফিকুল ইসলাম হিরা বলেন, ‘আদালত আম্মান সিদ্দিকীকে কারাগারে প্রেরণ করেছে। এ ছাড়াও তদন্ত কর্মকর্তা জানিয়েছেন রিমান্ডে অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য পাওয়া গেছে। আগামী রবিবারের মধ্যেই তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়ার কথা রয়েছে।’

রবিবার (১৭ মার্চ) রাতে জবি শিক্ষার্থী আম্মান সিদ্দিকী ও সাবেক সহকারী প্রক্টর দ্বীন ইসলামকে গ্রেফতারের পর কুমিল্লা কোতয়ালী মডেল থানা পুলিশের নিকট হস্তান্তর করে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ। তাদের বিরুদ্ধে কুমিল্লার কোতয়ালী মডেল থানায় অবন্তিকার মা তাহমিনা শবনম বাদী হয়ে মামলা করেন। পরে পুলিশ আম্মান সিদ্দিকীর পাঁচ দিন এবং সহকারী প্রক্টর দ্বীন ইসলামের দুই দিনের রিমান্ড চেয়ে আদালতে আবেদন করে। মামলার আসামি সহপাঠী আম্মান সিদ্দিকীকে দুই দিন এবং সহকারী প্রক্টর দ্বীন ইসলামের একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

এর আগে, শুক্রবার (১৫ মার্চ) রাত ১০টার দিকে ফেসবুক আইডিতে এক পোস্টে আত্মহত্যার জন্য বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক সহকারী প্রক্টর দ্বীন ইসলাম ও সহপাঠী আম্মান সিদ্দিকীকে দায়ী করেন অবন্তিকা। এরপর কুমিল্লা নগরীর বাগিচাগাঁও অবনি ভবনের দ্বিতীয় তলায় নিজ বাসায় গলায় ফাঁস নিয়ে আত্মহত্যা করেন তিনি।

অবন্তিকা জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী ছিলেন। তিনি কুমিল্লা সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যাপক প্রয়াত জামাল উদ্দিনের মেয়ে।