সাংবাদিক সমিতির আপনজন সম্মাননা পেয়ে আপ্লুত কুমিল্লার তৃণমূলের ১৩ গুণী সাংবাদিক

আবু সুফিয়ান রাসেল
প্রকাশ: ১১ মাস আগে

বাংলাদেশ সাংবাদিক সমিতি কুমিল্লা জেলার আয়োজনে আপনজন সম্মাননা পেয়ে আপ্লুত হলেন কুমিল্লার বিভিন্ন উপজেলার ১৩ জন গুণী সাংবাদিক। গতকাল শনিবার কুমিল্লা নগরীর একটি রেস্টুরেন্টে এক আড়ম্বরপূর্ণ অনুষ্ঠানে তাদেরকে সম্মাননা প্রদান করা হয়। সংবর্ধিত সাংবাদিকরা প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করতে গিয়ে আবেগ তাড়িত হয়ে উঠেন। তারা এ আয়োজনকে তাদের জীবনের উল্লেখযোগ্য সম্মান হিসেবে অভিহিত করে বলেন, এ ধরনের সংবর্ধনা ভবিষ্যত সাংবাদিকদের জন্য অনুপ্রেরণা হয়ে থাকবে।

বাংলাদেশ সাংবাদিক সমিতি কুমিল্লা জেলার সভাপতি ইয়াসমীন রীমার সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক শাহাজাদা এমরানের সঞ্চালনায় আপনজন সম্মাননা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন কুমিল্লা বিশ^বিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ এফ এম আবদুল মঈন। বিশেষ অতিথি ছিলেন কুমিল্লা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর জামাল নাছের, সান মেডিকেল সার্ভিসেস কুমিল্লার ব্যবস্থাপনা পরিচালক অধ্যাপক ডা. মো. আবদুল লতিফ।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য ড. এ এফ এম আবদুল মঈন বলেন, সাংবাদিকরা হলো জাতির বিবেক। সাংবাদিকরা চাইলে বদলে দিতে পারেন। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আমাকে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের দায়িত্ব দিয়ে পাঠিয়েছেন। তিনি যদি আমাকে গোপালগঞ্জ পাঠান সেখানেও কাজ করবো। কাজ করার ক্ষেত্রে আপনাদের সহযোগীতা চাই। কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার গুণগত মান উন্নয়নে আপনাদের আমি সহযাত্রী হিসাবে পাশে চাই।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড কুমিল্লার চেয়ারম্যান অধ্যাপক জামাল নাছের বলেন, স্মার্ট বাংলাদেশ তৈরিতে গণমাধ্যমের ভূমিকা অগ্রগণ্য। সাংবাদিকদের বস্তুনিষ্ঠ সংবাদের মাধ্যমে আমরা গুজবের বিরুদ্ধে সঠিক খবর জানতে পারি। কুমিল্লার শিক্ষাকে এগিয়ে নিতে, কুমিল্লা বোর্ডকে এগিয়ে নিতে আমি আপনাদের সহযোগিতা চাই।

সভাপতির বক্তব্যে ইয়াসমীন রীমা বলেন, সাংবাদিক সমিতি কুমিল্লা সাংবাদিকদের প্রতিনিধিত্বকারী সংগঠন। আজকের ১৩জনসহ ২০জন সহকর্মীকে সম্মানিত করেছে। সাংবাদিকদের ভালো মন্দে আমরা পাশে থাকতে চাই। আপনাদের সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, সিসিএন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা ড. তারিকুল ইসলাম চৌধুরী, বিশিষ্ট ছড়াকার জহিরুল হক দুলাল, বিশিষ্ট সংগঠক অধ্যক্ষ সফিকুর রহমান, সাপ্তাহিক অভিবাদন সম্পাদক আবুল হাসানাত বাবুল, ব্যবসায়ী নেতা আলহাজ¦ শাহ মো. আলমগীর খান, বাপা কুমিল্লার সাধারণ সম্পাদক আলী আকবর মাসুম প্রমুখ।

স্বাগত বক্তব্য রাখেন, সিটিভি নিউজ সম্পাদক ওমর ফারুকী তাপস ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন এখন টিভির কুমিল্লা ব্যুরো চীফ খালেদ সাইফুল্লাহ। অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন তোলোয়াত করেন সাংবাদিক আবু হানিফ মজুমদার।
আলোচনা সভা শেষে নির্বাচন কমিশনার ও কুমিল্লা প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি আবুল হাসানাত বাবুল সাংবাদিক সমিতি কুমিল্লার ২০২৩-২০২৫ বর্ষের ২৩ সদস্য বিশিষ্ট কার্যকরি কমিটি ঘোষণা করেন।

সংবর্ধিত হওয়া কুমিল্লার ১৩জন গুণী সাংবাদিক হলেন, দেবিদ্বার উপজেলার এ বি এম আতিকুর রহমান বাশার। তিনি ১৯৭৬ সাল থেকে গণমাধ্যমে কাজ করছেন। বর্তমানে তিনি দৈনিক কালের কণ্ঠ পত্রিকার দেবিদ্বার উপজেলা প্রতিনিধি। লাকসাম উপজেলার মোহাম্মদ আব্দুল কুদ্দুস। ১৯৭৯ সাল থেকে তিনি সাংবাদিকতা করছেন। তিনি দৈনিক ইত্তেফাকের প্রতিনিধি। দাউদকান্দি উপজেলার হাবিবুর রহমান হাবিব। ১৯৭৬ সাল থেকে তিনি সাংবাদিকতা করছেন। তিনি দৈনিক ইত্তেফাকের কুমিল্লা উত্তর জেলা প্রতিনিধি। হোমনা উপজেলা থেকে এটিএম মোর্শেদুল ইসলাম শাজু। তিনি ১৯৯০ সালে থেকে লেখালেখির সাথে যুক্ত। তিনি দৈনিক আমাদের কুমিল্লার হোমনা প্রতিনিধি। নাঙ্গলকোট উপজেলার মজিবুর রহমান মোল্লা। ১৯৮৯ সালে সংবাদপত্রে যুক্ত হওয়া এ গুণিজন দৈনিক ইত্তেফাকের নাঙ্গলকোট প্রতিনিধি। মুরাদনগর উপজেলার শাহ আলম জাহাঙ্গীর। তিনি ১৯৮৩ সালে সংবাদপত্রের সাথে মিতালি করেন। কাজ করছেন স্থানীয় ও জাতীয় দৈনিকে। ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলা থেকে সৈয়দ আহাম্মদ লাভলু। তিনি ১৯৯৯ সাল থেকে পত্রিকায় কাজ শুরু করেন। দৈনিক বুড়িচং ব্রাহ্মণপাড়া পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক তিনি। বুড়িচং উপজেলার সিনিয়র সাংবাদিক মোসলেহ উদ্দিন। ১৯৮৫ সালে তিনি সংবাদপত্রে কাজ শুরু করেন। চৌদ্দগ্রাম উপজেলার এম এ কুদ্দুস। ১৯৯০ সাল থেকে তিনি সংবাদপত্রে লিখেন। বর্তমানে তিনি দৈনিক রূপসী বাংলার নিজস্ব প্রতিবেদক। চান্দিনা উপজেলার রিপন আহমেদ ভূঁইয়া। ১৯৮৬ সালে সাংবাদিকতা শুরু করেন। তিনি ভোরের কাগজের উপজেলা প্রতিনিধি। বরুড়া উপজেলা থেকে মোহাম্মদ মাসুদ মজুমদার। তিনি দৈনিক যায়যায় দিন পত্রিকায় বহুবছর ধরে কাজ করছেন। মেঘনা উপজেলার মাহমুদুল হাসান বিপ্লব সিকদার। ১৯৯৯ সালে সাংবাদিকতা শুরু তার। তিনি দৈনিক আমাদের কুমিল্লার মেঘনা প্রতিনিধি। তিতাস উপজেলার নাজমুল করিম ফারুক। তিনি গত দুই দশক পত্রিকার সংবাদকর্মী। তিনি ইত্তেফাক পত্রিকার তিতাস প্রতিনিধি।

সংবর্ধিত অতিথিদের সাংবাদিক সমিতি কুমিল্লার পক্ষ থেকে ক্রেস্ট, সম্মাননা পত্র, পাঞ্জাবি, কলম, প্যাড. ক্যালান্ডার ও ব্যাগ প্রদান করা হয়।