আমেরিকা-লন্ডন গিয়ে বহু চেষ্টা করেও ফিরেছেন খালি হাতে , এবার পদত্যাগ করুন – মির্জা ফখরুল

কুমিল্লায় বিএনপির রোড মার্চের সভা
স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ৫ মাস আগে

মোস্তাফিজুর রহমান/ রুবেল মজুমদার।।

বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, এই অবৈধ সরকার যে ভোটচোর এটা আজ সারা পৃথিবীর মানুষ জানে। কোনো অগণতান্ত্রিক সরকারকে দেশের মানুষ আর ক্ষমতায় দেখতে চায় না। তাই নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকার দিতে হবে। এই সরকারের অধীনে তত্ত্বাবধায়ক সরকার ছাড়া বিএনপি কোনো নির্বাচনে যাবে না। এই সরকারের প্রধানমন্ত্রী আমেরিকা-লন্ডন ঘুরেও কোনো ফলাফল না পেয়ে শূন্য হাতে ফিরে এসেছেন। বিদেশিদের বুঝাতে পারেনি সরকার। এখনও সময় আছে পদত্যাগ করুন। জনগণ আর কোনো স্বৈরাচার দেখতে চায় না।
বৃহস্পতিবার (৫ অক্টোবর) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলার কালকচুয়ায় কুমিল্লা-ফেনী-মিসরাই-চট্টগ্রাম তারুণ্যের রোডমার্চের প্রারম্ভিক সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। সরকারের পদত্যাগ এবং জনগণের ভোটাধিকার প্রতিষ্ঠার এক দফা দাবিতে এবার কুমিল্লা থেকে চট্টগ্রাম পর্যন্ত রোডমার্চ করছে বিএনপি। রোডমার্চে নেতৃত্ব দিচ্ছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী।

বেগম খালেদা জিয়া খুবই অসুস্থ জানিয়ে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ক্ষমতাসীনরা টিকতে পারবে না জেনেই বেগম খালেদা জিয়াকে বিদেশে চিকিৎসার জন্য পাঠাচ্ছে না। এই সরকার সব দিকে ব্যর্থ হয়ে আমাদের মাথার মুকুট দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে বিচারের নামে বিনা চিকিৎসায় মেরে ফেলার পাঁয়তারা করছে। আমি এই সভা থেকে দাবি জানাচ্ছি খালেদা জিয়াকে অবিলম্বে মুক্তি দিতে হবে।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ২০১৪ এবং ২০১৮ সালের মতো নির্বাচন এবার হতে দেওয়া হবে না।ক্ষমতাসীনদের অধীনে নির্বাচন হবে না। ভয় দেখায়! কোনো ভয়ে কাজ হবে না। তানা উন্নয়নের কথা বলে। কোনো রকমের নিরাপত্তার ব্যবস্থা না করে চুরি করতে পরমানু বিদ্যুৎ প্রকল্প করেছে। উন্নয়নের নামে টাকা পাচার করছে।
সরকারকে পদত্যাগের আহ্বান জানিয়ে ফখরুল বলেন, সংসদ বিলুপ্ত করুন। না হলে জনগণ জানে কিভাবে দাবি আদায় করতে হয়। শান্তিপূর্ণভাবে রাজপথ দখল করে রাখতে হবে। রাজপথ দখল করে সরকারকে পদত্যাগে বাধ্য করা হবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, উন্নয়নের নামে সরকার জনগণের সম্পদ লুট করেছে। ডিজিটাল সিকিউরিটি আইনের মতো আইন করে কথা বলার অধিকার কেড়ে নিয়েছে। ভোটের অধিকার হরণ করেছে। বিচার ব্যবস্থা ও স্বাস্থ্য ব্যবস্থাকে শেষ করে দিয়েছে। আওয়ামী লীগ সরকার থাকলে দেশ ধ্বংস হয়ে যাবে। কথা পরিষ্কার-হাসিনার অধীনে আমরা নির্বাচনে যাব না।
ফখরুল বলেন, ভোট চুরি আর করতে দেওয়া হবে না। দাবি একটাই আমরা সুষ্ঠুভাবে ভোট দিতে চাই। রোডমার্চের মধ্যদিয়ে সরকারকে জানিয়ে দিচ্ছি এখনও সময় আছে পদত্যাগ করেন, নয় তো জনগণ জানে কীভাবে আপনাদের ক্ষমতা থেকে নামাতে হয়।

কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহ্বায়ক এবং কেন্দ্রীয় বিএনপির ত্রাণ ও পুনর্বাসন বিষয়ক সম্পাদক হাজী আমিন উর রশীদ ইয়াসিনের সভাপতিত্বে এ সভায় প্রধান বক্তা ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী। বিশেষ অতিথি ছিলেন, বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, বরকত উল্লাহ বুলু, আবদুল আউয়াল মিন্টু ও মো. শাহাজাহান। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন,বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মনিরুল হক চৌধুরী,বিএনপির কর্মসংস্থান সম্পাদক জাকারিয়া তাহের সুমন, শিল্প সম্পাদক মো. আবুল কালাম, অর্থনীতি বিষয়ক সম্পাদক ইঞ্জিনিয়ার খালেদ হোসেন মাহবুব শ্যামল, প্রবাসী কল্যাণ সম্পাদক শেখ ফরিদ আহমেদ মানিক, বিএনপি চেয়ারপারসনের প্রেস উইং সদস্য শামসুদ্দিন দিদারসহ আরও অনেকে।

সভায় বক্তব্য রাখেন, বিএনপির কুমিল্লা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তাক মিয়া, বিএনপির প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানিসহ কেন্দ্রীয়-স্থানীয় নেতারা।

সঞ্চালনা করেন কুমিল¬া মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক উৎবাতুল বারী আবু, কুমিল¬া দক্ষিণ জেলা বিএনপির সদস্য সচিব হাজী জসিম উদ্দিন ও কুমিল¬া মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব ইউসুফ মোল¬া টিপু।