কাঁচা মরিচ ২০০ ধনিয়াপাতা ৫০০

কুমিল্লার বাজারে উত্তাপ :
মোস্তাফিজুর রহমান
প্রকাশ: ১০ মাস আগে

কুমিল্লা নগরীর বাজার গুলোতে হু হু করে বাড়ছে সবজির দাম। হঠাৎ করে দাম বেড়ে কাঁচা মরিচ ২০০ এবং ধনিয়াপাতা ৫০০ টাকা দামে বিক্রি হচ্ছে। অথচ মাত্র ২ দিন আগেই ঁকাচা মরিচ বিক্রি হয়েছে ১০০ টাকা ধনিয়াপাতা বিক্রি হয়েছে ৩০০ টাকায়। মাত্র ২ দিনের ব্যবধানে অস্বাভাবিক ভাবে বৃদ্ধি পায় এই দুইটি পণ্য। গতকাল সোমবার নগরীর রানীর বাজার, বাদশামিয়া বাজার, রাজগঞ্জ বাজার সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, খুচরা দোকান গুলোতে ১৬০ টাকা থেকে ২০০ টাকা কেজি দরে কাঁচা মরিচ বিক্রি হচ্ছে। ভালো মরিচ ২০০ টাকা এবং খারাপ পঁচা মরিচ বিক্রি হচ্ছে ১৬০ থেকে ১৮০ টাকা। তবে অস্বাভাবিক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে ধনিয়াপাতা। যা সাধারণ মানুষের ক্রয় সীমার বাহিরে চলে গেছে।
রানীর বাজারের খুচরা বিক্রেতা আল আমীন জানান, দুই দিন আগেও কাঁচা মরিচ আর ধনিয়াপাতার দাম কম ছিলো। আজকে হঠাৎ করে দাম বেড়ে গেছে। দেখা গেছে বাজারে কাঁচা মরিচের চাহিদা হচ্ছে ২০ গাড়ি আসে ১০ গাড়ি যার কারণে তারা বাড়তি দামে খুচরা বিক্রেতাদের কাছে বিক্রি করছে। এই কারণে মরিচ আর ধনিয়াপাতা অস্বাভাবিক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। সবজি বাজার বলা যায় , আবার কালকেই কমে যেতে পারে।
রাজগঞ্জ বাজারের রফিক মিয়া বলেন, আমাদের কাছে কিছুই নাই সব হচ্ছে নিমসার। তারা কম দামে দিলে আমরা কম দামে বিক্রি করি। তাদের কাছ থেকে বেশি দামে কিনে এনে আমরা কিভাবে কম দামে বিক্রি করবো? কাঁচা বাজার সব সময় উঠানামা করে আজকে বাড়লে দেখা গেছে কালকেই আবার কমে যায়।
নগরীর রানীর বাজারে বাজার করতে আসা মিজানুর রহমান বলেন, আমি ২৫০ গ্রাম কাঁচা মরিচ নিছি ৫০ টাকা দিয়ে। সব কিছুর দামই বাড়া কাঁচা মরিচের দোষ দিয়ে কি হবে। যেটাতে হাত দেই সেটাই আগুন। বড় লোকদের তো কোন সমস্যা হচ্ছে না। সমস্যা হচ্ছে আমাদের মতো সাধারণ মানুষের।
বাদশা মিয়া বাজারে বাজার করতে আসা আলাউদ্দিন বলেন, বাংলাদেশের অনেক উন্নয়ন হয়েছে তাই জিনিস পত্রের দামও বেড়েছে। যে যেভাবে পারছে লুট করছে। নয়তো নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিস পত্রের দাম কেন এভাবে বৃদ্ধি পাচ্ছে। আসল কথা হলো প্রশাসন চাইলে সবই সম্ভব কিন্তু তারা মনে হয় এ বিষয়ে আন্তরিক না। যেখানে দাম বাড়ায় সেখানে বাজার মনিটরিং করলে হয়তো অসাধু ব্যবস্থায়ীরা এই সুযোগটা পেতো না।
কুমিল্লা ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মো.আসাদুল ইসলাম বলেন,প্রতিদিনই আমাদের বাজার মনিটরিং চলছে। কাঁচা বাজারে দাম নির্ধারণ করা থাকে না তারা দাম দিয়ে কিনলে দামে বিক্রি করে। তবে কেউ যদি কারসাজি করে তাহলে আমরা তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবো। এখন তথ্য যেহেতু পেয়েছি আমরা বিষয়টা দেখবো।