কুমিল্লায় ক্ষুদ্ধ নির্বাচন কমিশনার রাশেদা সুলতানা বললেন – যিনি আচরণবিধি লঙ্ঘন করলেন তাঁর ইজ্জত কী ?

স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ৬ মাস আগে

নির্বাচন কমিশনার রাশেদা সুলতানা ক্ষুদ্ধ কন্ঠে বললেন, নির্বাচন কমিশনের ইজ্জত যাবে কেন ? যিনি আচরণবিধি লঙ্ঘন করলেন ( কুমিল্লা সদর আসনের এমপি বাহার)তাঁর ইজ্জত কী? উনি চলে গেলে ভালো করতেন। নির্বাচন শেষ হওয়ার আগে কমিশনকে ব্যর্থ বলা যাবে না। সোমবার কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন উপলক্ষে প্রিসাইডিং কর্মকর্তাদের নিয়ে ব্রিফিং শেষে উপস্থিত সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন। সকাল ১০টায় নগরীর নবাব ফয়জুন্নেছা সরকারি বালিকা উচ্চবিদ্যালয় মিলনায়তনে এ ব্রিফিং অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় অপর নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) মো. আহসান হাবিব খান উপস্থিত ছিলেন।
কুমিল্লা মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি ও স্থানীয় এমপি আকম বাহা উদ্দিন বাহারকে ইসি থেকে চিঠি দেওয়ার পরেও কেন নির্বাচনী এলাকা থেকে সরানো যাচ্ছে না এ প্রশ্নের জবাবে নির্বাচন কমিশনার রাশেদা সুলতানা বলেন, একজন সম্মানিত লোককে টেনেহিঁচড়ে নামানো কমিশনের কাজ নয়।
একজন এমপিকে নিয়ে যদি নির্বাচন কমিশন পিছু হটে, ভবিষ্যতে ৩০০ এমপিকে নিয়ে কী করবেন জানতে চাইলে ইসি রাশেদা সুলতানা বলেন, ‘আইনি কাঠামো যেভাবে আছে, সেভাবে কাজ করছে নির্বাচন কমিশন। উনি (এমপি বাহার) আইন মানেন না, আইনপ্রণেতা। আমাদের ব্যর্থ বলেন কেন আপনারা? একজন সম্মানিত লোককে টেনেহিঁচড়ে নামানো কমিশনের কাজ নয়।’

জানা যায়, সোমবার সকালে দুই নির্বাচন কমিশনার আগামী ১৫ জুন অনুষ্ঠিতব্য কুসিক নির্বাচনের ১০৫টি ভোট কেন্দ্রের প্রিসাইডিং কর্মকর্তাদের নিয়ে এক ব্রিফিং উপলক্ষে কুমিল্লায় আসেন। প্রিসাইডিং কর্মকর্তাদের নিয়ে তাঁরা সকাল ১০টা থেকে দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত ব্রিফিং করেন। ব্রিফিং শেষে গণমাধ্যমকর্মীদের সাথে কথা বলেন তারা।

এ সময় নির্বাচন কমিশনার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) মো. আহসান হাবিব বলেন, ‘জনগণের ভোটে নির্বাচিত আপনি (এমপি বাহার)। এ ক্ষেত্রে আইনপ্রণেতা হয়ে আপনি নিজেই ব্যর্থ হলেন। এরপরে কুমিল্লা সিটি নির্বাচনকে উদাহরণ হিসেবে নেবেন বাংলাদেশের মানুষ। যেখানে ভোটের পরিবেশ নেই, সেই কেন্দ্র বন্ধ হবে।’
কুমিল্লা জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ কামরুল হাসানের সভাপতিত্বে প্রিসাইডিং কর্মকর্তাদের নিয়ে ব্রিফিং অনুষ্ঠানে দুই নির্বাচন কমিশনার ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন, নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের যুগ্ম সচিব (আইন) মো. মাহবুবার রহমান সরকার, পুলিশ সুপার ফারুক আহমেদ, কুমিল্লা আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা মো. দুলাল তালুকদার, নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের ইভিএম প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক কর্নেল সৈয়দ রাকিবুল হাসান ও রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. শাহেদুন্নবী চৌধুরী উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য, আগামী ১৫ জুন সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত কুসিকের ২৭টি ওয়ার্ডে ইভিএমে ভোট গ্রহণ করা হবে।