কুমিল্লা নির্বাচন অফিসজুড়ে নিরাপত্তা জোরদার : নাশকতার আশংকা নাকচ করলেন পুলিশ সুপার

স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ২ মাস আগে

স্টাফ রিপোর্টার ।। নাশকতার আশংকায় আসন্ন কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনকে কেন্দ্র করে কুমিল্লা নির্বাচন অফিস জুড়ে ব্যাপক নিরাপত্তার ব্যবস্থা বাড়ানো হয়েছে বলে সোমবার কুসিকের বেশ কয়েকজন কাউন্সিলর প্রার্থী ও তার কর্মী সমর্থকরা দাবী করেছেন। তবে কুমিল্লা জেলা পুলিশ সুপার মো. ফারুক আহমেদ নাশকতার আশংকা নাকচ করে বলেছেন, সিটি নির্বাচনে আইনশৃংখলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে যে ধরনের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া প্রয়োজন আমরা ধাপে ধাপে সারা নগরীতে সেটাই করছি। এখানে নাশকতার কোন আশংকা নেই।
সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, জেলা ও আঞ্চলিক নির্বাচন অফিসের সড়কের মাথায় পুলিশি চেক পোস্ট। মোটর সাইকেল কিংবা গাড়ি প্রবেশ নিষিদ্ধ। পুলিশ কর্মকর্তা ও ট্রাফিক পুলিশ সদস্যরা নির্বাচন অফিসে আগত মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীদের দেখে শুনে কথা বলে ভেতরে যেতে দিচ্ছেন। নির্বাচন অফিসের বাইরেও বেশ কয়েকজন পুলিশ সদস্যের অবস্থান। প্রার্থী ও তাদের সমর্থকদের উদ্দেশ্য বলছেন দুজনের বেশী লোক যেন অফিসের ভেতরে প্রবেশ না করেন।
জেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায়, ১৭ মে মঙ্গলবার মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার শেষ। ১৫ মে রোববার পর্যন্ত সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের জন্য মেয়র পদে ৫ জন, সাধারণ কাউন্সিলর ১৪৮ জন সাধারণ কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর পদে ৩৭ জন মনোনয়ন পত্র সংগ্রহ করেছেন।
সিটি কর্পোরেশনের রিটার্নিং কর্মকর্তা মোঃ শাহেদুন্নাবী চৌধুরী বলেন, মঙ্গলবার পর্যন্ত মনোনয়ন পত্র জমা দানের শেষ দিন। আমরা প্রার্থী ও তাদের সমর্থকদের নির্দেশনা দিচ্ছি তাদের কি করতে হবে এবং কি বর্জন করতে হবে।

উল্লেখ্য, কুসিক নির্বাচনে ১৭ মে পর্যন্ত মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ ও জমা নেওয়া হবে রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যলয়ে । ১৯ মে জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে যাছাই- বাছাই হবে। ২৭ মে প্রতীক বরাদ্দ হবে জেলা শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তনে। আগামী ১৫ জুন নির্বাচনী নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।