কুসিক নির্বাচন : জয় পরাজয়ে ভুমিকা রাখবে নারী ভোটাররা

স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ৬ মাস আগে

স্টাফ রিপোর্টার ।। আগামী ১৫ জুন অনুষ্ঠিতব্য কুমিল্লা সিটি করপোরেশন (কুসিক) নির্বাচনে জয় পরাজয়ে নিয়ামক ভুমিকা পালন করতে পারে নারী ভোটাররা। কুসিকে এবার পুরুষ ভোটারের চেয়ে নারী ভোটার বেশী। তাই নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী প্রার্থীরাও নারী ভোটারদের মন জয় করার জন্য ইতিমধ্যে মাঠে নামিয়েছেন স্ত্রী, কণ্যা,বোন ও ভাবীদের।
কুসিক সূত্রে জানা যায় , এবার কুমিল্লা সিটিতে মোট ভোটার ২ লাখ ২৯ হাজার ৯২০ জন। এর মধ্যে নারী ভোটার হলো, ১ লাখ ১৭ হাজার ৯২ জন এবং তৃতীয় লিঙ্গের ভোটার রয়েছেন ২ জন।
সরেজমিনে সিটির বিভিন্ন এলাকা ঘুরে ও নানা শ্রেণি-পেশার নারীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, স্বামী বা বাবার কথায় এবার খুব বেশী নারীকে ভোট দিতে প্রভাবিত করা যাবে না। তারা দেখে শুনে এবং জেনে তুলনামুলক ভাবে যোগ্য প্রার্থীকেই বেছে নিবেন বলে জানান।
কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনের ২১নং ওয়ার্ডের ভোটার স্কুল শিক্ষিকা জাহেরা আক্তার বলেন, নির্বাচনের আগে সব মেয়র প্রার্থীই তাদের ইশতেহার ঘোষনা করে। আগে ইশতেহার ঘোষনা করুক। দেখি কার ইশতেহারে নারীদের জন্য কত টুকু কি রেখেছে। সব কিছু পড়ে দেখে শুনে বুঝে এবার মেয়র পদে ভোট দিব। আমরা যাকে যোগ্য মনে করব তাকেই বেছে নিব। কারো ব্যক্তি চেহারা কিংবা মার্কা দেখে ভোট দিব না।
কুমিল্লা ইপিজেডে কর্মরত ২৫ নং ওয়ার্ডের ভোটার বিলকিস বেগম বলেন, কারে ভোট দিমু এখনো ভাবি নাই। যে লোক আমাগো গরীব শ্রমিকদের জন্য ভালো কাম করব তারেই ভোট দিমু।
নগরীর ১৮ নং ওয়ার্ডের একটি বেসরকারী ব্যাংকে কর্মরত ইদিয়ানুস খানম পপি জানান, যানজটের কারণে প্রতিদিন অফিস থেকে বাসায় আসতে কষ্ট হয়। সিটি কর্পোরেশন হওয়ার পর দুটো পরিষদ গেল। কিন্তু কুমিল্লা নগরবাসীকে যানজট থেকে মুক্তি দিতে পারে নাই। এবার ভোট দেওয়ার আগে একটু ভেবে নিব।
কুমিল্লা জজ কোর্টে কর্মরত ৭নং ওয়ার্ডের ভোটার এড. কাজী ইলমা আক্তার জানান, দেশের অন্যান্য নারীদের তুলনায় কুমিল্লার নারীরা অনেক সচেতন। সুতরাং আমার ধারণা কারো কথায় স্বামী কিংবা বাবা বললেই নিজের মৌলিক অধিকারটি দিয়ে দিবে এমনটি আমার মনে হয় না। এবার কুমিল্লার নারীরা এমন একজন মেয়রকে বেছে নিবেন যিনি নতজানু হয়ে থাকবেন না, কাউকে জি হুজুর করবেন না । বরং মেরুদন্ড সোজা রেখে নারীর অধিকারের বিষয়ে সর্বদা সোচ্চার থাকবেন এমন মেয়র প্রার্থীকেই কুমিল্লার নারীরা এবার ভোট দিবেন।
এ দিকে কুসিক নির্বাচনের প্রধান তিন মেয়র প্রার্থী নৌকা প্রতীকের আরফানুল হক রিফাত, টেবিল ঘড়ি প্রতীকের মনিরুল হক সাক্কু এবং ঘোড়া প্রতীকের নিজাম উদ্দিন কায়সার তিন প্রার্থীই তাদের নিকট আত্মীয় স্বজন নারীদের নির্বাচনী প্রচারণায় যুক্ত করেছেন। কারণ, যেহেতু মোট ভোটারের মধ্যে নারী ভোটার সবচেয়ে বেশী তাই যে প্রার্থী যত বেশী নারী ভোট পাবেন সেই প্রার্থীরই জেতার সম্ভাবনা বেশী থাকবে বলে মনে করেন সচেতন মহল্
এ বিষয়ে জানতে চাইলে বাংলাদেশ সাংবাদিক সমিতি কুমিল্লা জেলা শাখার সভাপতি ইয়াসমিন রীমা বলেন, নারীরা এমন নগর পিতা চায় যে নগরের সার্বিক উন্নয়নের অবদান রাখবে। এছাড়া কুমিল্লা নগরের রাস্তা, যানজট ও জলবাদ্ধতার মত মূল সমস্যা সমাধান করবে এমন প্রার্থীকে ভোট দিবেন নারীরা।