গণসমাবেশ সফলের জন্য দিন রাত পরিশ্রম করছেন কুমিল্লার বিএনপির বহিস্কৃত নেতারা

কুমিল্লার বহিস্কৃত বিএনপি নেতাদের সংবাদ সম্মেলন
স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ১ সপ্তাহ আগে

দলের নির্দেশ অমান্য করে কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে অংশ নেয়া বিএনপির মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা দলে ফিরতে চান। ইতিমধ্যে দলের কাছে আনুষ্ঠানিক ভুল স্বীকার করে ক্ষমা চেয়ে বহিস্কারাদেশ প্রত্যাহারের জন্য আবেদন করা হয়েছে। বহিস্কৃত এই নেতাদের বিশ^াস আগামীর রাষ্ট্রনায়ক তারেক রহমান তাদের ভুল ত্রুটি ক্ষমা করে দলের মূল স্্েরাতে ফিরিয়ে নিবেন। এখন তাদের পদ পদবী না থাকলেও আগামী ২৬ নভেম্বর কুমিল্লা টাউন হল মাঠে অনুষ্ঠিতব্য গণসমাবেশ সফল করার জন্য তারা দিনরাত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। তাদের পরিস্কার বক্তব্য, আমরা শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের সৈনিক,দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার কর্মী এবং আগামীর রাষ্ট্রনায়ক তারেক রহমানের রাজপথের লড়াকু সৈনিক। আজ রোববার(২০ নভেম্বর) সকালে কুমিল্লা নগরীর একটি রেষ্টুরেন্টে গত সিটি নির্বাচনে অংশ নেয়া ৯ জনর প্রার্থী আনুষ্ঠানিক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন।
কুসিক নির্বাচনে ঘোড়া প্রতীক নিয়ে স্বতন্ত্র মেয়র পদে নির্বাচন করা, কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক দলের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক,কুমিল্লা মহানগর স্বেচ্ছাসেবক দলের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও কুমিল্লা দক্ষিণ জেলা ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন কায়সার বহিস্কৃত ৯ নেতার পক্ষে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন এবং সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন।
সংবাদ সম্মেলনে সাবেক ছাত্রদল ও স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতা নিজাম উদ্দিন কায়সার বলেন. আমরা কোন পদে আছি কি নেই সেটা আমাদের বিবেচ্য বিষয় নয়। আমাদের দেশ নায়ক তারেক রহমান ডাক দিয়েছেন গণতন্ত্র উদ্ধারের সংগ্রামে ঝাঁপিয়ে পড়ার জন্য। এই মুহুর্তে কে কোন পদে আছি বা আমরা বহিস্কার না আবিস্কার তা শোনারও আমাদের সময় নেই। কারণ, গণতন্ত্রের মা , দেশনেত্রী ও তিন বারের সাবেক সফল প্রধান মন্ত্রী আজ বন্দি। নির্যাতিত নিপিড়িত মানুষের কন্ঠস্বর আগামীর বাংলাদেশের রাষ্ট্রনায়ক তারেক রহমান আজ নির্বাসিত। সুতরাং আমাদের যার যা কিছু আছে তাই নিয়ে আমরা এখন রাজপথে আছি। আগামী ২৬ নভেম্বর কুমিল্লার বিভাগীয় গণসমাবেশ সফল করার জন্য আমরা দিনরাত কাজ করে যাচ্ছি। গত সিটি নির্বাচনে আমরা দলের সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে নির্বাচনে অংশ নিয়ে ভুল করেছি। আমরা জাতীয়তাবাদে বিশ্বাসী। আমরা দলের বাইরে যেতে পারবো না। আমরা হাইকমান্ডের কাছে আবেদন করেছি। আশা করি শিগগিরই আমাদের ভুল ক্ষমা করে দলে ফিরিয়ে নেবেন।
কুমিল্লা সিটি নির্বাচনে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করা ও তরুণ বিএনপি নেতা নিজাম উদ্দিন কায়সার বলেন, বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান দেশনায়ক তারেক রহমানের নেতৃত্বে দেশে আজ আন্দোলনের নতুন বসন্ত দেখা দিয়েছে। আপনারা আরব বসন্ত দেখেছেন। আল্লাহর রহমতে শিগগিরই তারেক বসন্ত দেখবেন। কুমিল্লা থেকেই তারেক বসন্ত শুরু হলো।
কুমিল্লার প্রশাসনের একদল অতিউৎসাহী কর্মকর্তা আমাদের নেতাকর্মীদের হয়রানি করছে উল্লেখ করে বিএনপি নেতা নিজাম উদ্দিন কায়সার বলেন, সিটির ১৬ নম্বর ওয়ার্ডে আমাদের স্বেচ্ছাসেবকদল নেতাদের ঘরে পুলিশ গিয়ে হানা দিয়েছে। ওই নেতাকে না পেয়ে তার ছোটভাইকে গ্রেফতার করেছে। এমন আরো বেশ কয়েকটি জায়গায় পুলিশী হয়রানীর অভিযোগ করে তিনি এর তীব্র নিন্দা জ্ঞাপন করে এসব হয়রানি বন্ধের আহবান জানান।
সাবেক স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা নিজাম উদ্দিন কায়সার আরো বলেন, সারা দেশের ন্যায় কুমিল্লার গণসমাবেশেও জনতার ঢল নামবে। এই ভোটচোরের সরকারের বিরুদ্ধে মানুষের ক্ষোভের বহি: প্রকাশ ঘটাবে। কুমিল্লার প্রশাসন, আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী, কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন, পরিবহন মালিক ও শ্রমিক, ব্যবসায়ীসহ পেশাজীবীসহ কুমিল্লার সাধারণ মানুষের প্রতি আহবান জানিয়ে তিনি বলেন, আপনারা শান্তিপূর্ণভাবে গণসমাবেশ সফল করতে সহযোগিতা করুন। তারা আরো বলেন, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুরে পুলিশের গুলিতে সোনারামপুর ইউনিয়ন ছাত্রদলের সহ-সভাপতি রফিকুল ইসলাম নয়ন নিহত হয়েছেন। এই ঘটনার তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করছি।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন কুমিল্লা জেলা বিএনপি সাবেক বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক এস এ বারী সেলিম,বহিস্কৃত বিএনপি নেতা ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা হলেন, সাবেক কাউন্সিলর সেলিম খান, সদর দক্ষিণ পৌরসভা বিএনপির সাবেক সভাপতি শাহ আলম মজুমদার, কুমিল্লা মহানগর বিএনপির সাবেক যুগ্ম আহবায়ক মো. বিল্লাল হোসেন, মহানগর বিএনপি’র সাবেক সদস্য মোহাম্মদ হারুনুর রশিদ, মহানগর বিএনপির সাবেক সদস্য নাসির উদ্দিন, মহানগর মহিলা দলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক কোহিনুর আক্তার কাকলি, আব্দুল্লাহ আল মোমেন মোস্তাফিজুর রহমান বাবুল প্রমুখ।