চৌদ্দগ্রামে পুলিশের পৃথক অভিযানে মাদকদ্রব্য সহ আটক-৫

স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ৬ মাস আগে

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম থানা পুলিশ পৃথক অভিযান চালিয়ে দুই চোর ও তিন মাদককারবারীসহ পাঁচজনকে আটক করেছে। এসময় ৩০ কেজি গাঁজা, ৫০০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট, ৫০ বোতল স্কাফ সিরাপ উদ্ধার করা হয়। শনিবার বিকেলে চৌদ্দগ্রাম থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) ত্রিনাথ সাহা তথ্যটি নিশ্চিত করেছেন।
তিনি আরও জানান, শুক্রবার রাতে উপপরিদর্শক
(এসআই) মেহেদী হাসানের নেতৃত্বে পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে উপজেলার বাতিসা ইউনিয়নের কালিকাপুর মধ্যম পাড়া এলাকায় কাঁচা রাস্তার উপর থেকে অজ্ঞাতনামা ০২ জন আসামীর ফেলে যাওয়া ১০ কেজি গাঁজা উদ্ধার করা হয়। অপরদিকে উপপরিদর্শক (এসআই) অনুপ চক্রবর্তীর নেতৃত্বে পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলার ঘোলপাশা ইউনিয়নের ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসকের চট্টগ্রামমুখী লেনের আমানগন্ডা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে পাকা রাস্তার উপর থেকে ৫০০ পিস ইয়াবা ট্যাবলেটসহ মোঃ আব্দুর রহিম (৩৭) নামের এক মাদককারবারীকে গ্রেফতার করা হয়। আবদুর রহিম চট্টগ্রাম ফটিকছড়ি উপজেলার দাতমারা ইউনিয়নের সুবলছড়ি গ্রামের নুরুল ইসলামের ছেলে। এছাড়া উপপরিদর্শক (এসআই) আলী আশরাফ জুয়েলের নেতৃত্বে পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে চৌদ্দগ্রাম পৌরসভাস্থ জয়ন্তীনগর এলাকা থেকে নুরুন নবী (৩০) নামের এক মাদক কারবারীকে আটক করে। এসময় তার কাছ থেকে ৫০ বোতল এস্কাফ সিরাপ উদ্ধার করা হয়। সে চৌদ্দগ্রাম পৌরসভার সোনাকাটিয়া (পেশকার বাড়ী) গ্রামের এম আব্দুল বারিকের ছেলে।
অপরদিকে উপপরিদর্শক ( এসআই) মোঃ জাহিদ হোসেন রায়হানের নেতৃত্বে পুলিশ ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের উপজেলার কালিকাপুর ইউনিয়নের দক্ষিণ ছপুয়া নামক স্থানে ঢাকাগামী লেন সংলগ্ন ইসলামীয়া হোটেলের সামনে থেকে জিএস ট্রাভেলস নামের একটি যাত্রীবাহী বাস (রেজিঃ নং-যশোর-ব-১১-০২২১) থেকে ২০ কেজি গাঁজা উদ্ধার করে। এসময় বাসের সুপার ভাইজার খুলনা জেলার তেরখাদা থানার আজুগড়া গ্রামের বায়েজিদ আহমেদের ছেলে মোঃ আল আমিন প্রকাশ লিটন(৪৩)কে আটক করে পুলিশ।
এসব ঘটনায় অজ্ঞাতনামা দুইজনসহ আটককৃতদের বিরুদ্ধে মাদক নিয়ন্ত্রণ আইনে পৃথক মামলা দায়ের করা হয়েছে।
এছাড়া উপজেলার শুভপুর ইউনিয়নের গোবিন্দপুর গ্রামে চুরি করতে আসলে দুচোরকে আটক করে পুলিশে সোর্পদ করেছে গ্রামবাসী। আটককৃতরা হচ্ছে- একই ইউনিয়নের শুভপুর গ্রামের মীর হোসেনের ছেলে মোঃ জাহিদ (২২) ও কুমিল্লা জেলার বুড়িচং উপজেলার পয়াত (ভরসার বাজার সংলগ্ন) গ্রামের মোঃ ইউসুফের ছেলে মেহেদী হাসান (২৮)। আটককৃতদের আদালতের মাধ্যমে কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।