চৌদ্দগ্রামে যুবলীগ নেতা জামাল হত্যা মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত ২ আসামী গ্রেফতার

স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ২ সপ্তাহ আগে

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামের যুবলীগ নেতা জামাল উদ্দিন হত্যা মামলার মৃত্যুদন্ড সাজাপ্রাপ্ত ০২ আসামীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব ১১ সিপিসি ২।
গ্রেফতারকৃত আসামীরা হলেন, কুমিল্লা জেলার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার শিলরী এলাকার মৃত তাজুল ইসলামের ছেলে মোঃ খন্দকার মফিজুর রহমান (৫২) ও একই উপজেলার আলকরা এলাকার নজির আহম্মদ এর ছেলে মোঃ রেজাউল করিম বাবলু (৪২)।
সোমবার (১৩ মে) সকালে কুমিল্লা নগরীর শাকতলায় র‌্যাবের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব জানান র‌্যাব ১১ সিপিসি ২ এর কোম্পানী অধিনায়ক মাহমুদুল হাসান।
মাহমুদুল হাসান বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে তথ্য প্রযুক্তির সহায়তায় এর বিশেষ অভিযানে সোমবার (১৩ মে) রাতে কুমিল্লা শহরতলীর শাসনগাছা এলাকা হতে পলায়নকালে জামাল হত্যাকাণ্ডের ২ জন মৃত্যুদন্ডের সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামীকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হই।
উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের ৮ জানুয়ারি চৌদ্দগ্রাম আলকরা ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি জামাল উদ্দিনকে রাত আটটায় বাড়ি থেকে ঢাকায় যাওয়ার পথে ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কের চৌদ্দগ্রামের পদুয়ায় সড়কের উপরে স্থানীয় চেয়ারম্যান মোঃ ইসমাইল হোসেন বাচ্চুর নেতৃত্বে অন্য আসামীরা গুলি করে ও কুপিয়ে হত্যা করে। এ ঘটনায় নিহত জামালের বড় বোন জোহরা আক্তার বাদী হয়ে ২৩ জনকে আসামী করে মামলা করেন।
পরবর্তীতে, গত সোমবার (১৩ মে) মামলাটি বিজ্ঞ আদালতের বিচারকার্য শেষে আসামীদের বিরুদ্ধে আনীত অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় প্রধান আসামিসহ ০৯ জনের মৃত্যুদণ্ড, ০৯ জনের যাবজ্জীবন সাজা ও সেই সাথে প্রত্যেককে ৫০ হাজার টাকা অর্থদন্ড প্রদান করেন এবং ০৫ জনকে বেকসুর খালাস প্রদান করেন। মামলায় মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্তরা হলেন, চৌদ্দগ্রাম আলকরা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান মোঃ ইসমাইল হোসেন বাচ্চু, আলকরা ইউনিয়নের কুলাসার গ্রামের সালাউদ্দিন, আব্দুর রহমান, মফিজুর রহমান খন্দকার, জিয়াউদ্দিন শিমুল, জাহিদ বিন শুভ, রেজাউল করিম বাবলু, মোঃ রিয়াজ উদ্দিন মিয়াজী, মমতা আমির হোসেন।