নাঙ্গলকোটে রিকশায় বিদ্যুতায়িত হয়ে শিশুর মৃত্যু

নাঙ্গলকোট প্রতিনিধি :
প্রকাশ: ৪ মাস আগে

বেটারীচালিত রিকশায় বিদ্যুতায়িত হয়ে আরাফাত হোসেন সানি (৩) নামে এক শিশুর মর্মান্তিক মৃত্যু হয়েছে। আরাফাত কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলার কাজী জোড়পুকুরিয়া গ্রামের রিকশা চালক এমরান হোসেনের ছেলে। রবিবার সকাল সাড়ে ৬টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। পাশ্ববর্তী ভুলুয়া পাড়া বাংলা বাজারের গ্যারেজ মালিক মোহাম্মদ সাদ্দামের অবহেলার কারণে এ দুর্ঘটনা ঘটেছে বলে দাবী শিশু আরাফাতের পরিবারের।

স্থানীয় সূত্রে জানাযায়, কাজী জোড় পুকুরিয়া গ্রামের মহিন উদ্দিন ভান্ডারীর ছেলে এমরান হোসেন বেটারীচালিত রিকশাটি কয়েকদিন পূর্বে পাশ্ববর্তী বাংলা বাজারের অটোরিকশা গ্যারেজ মালিক ভুলুয়া পাড়া গ্রামের আব্দুল হালিমের ছেলে মোহাম্মদ সাদ্দামের নিকট থেকে ৬০ হাজার টাকায় ক্রয় করে। ক্রয় করার পর থেকে রিকশায় হাত দিলেই বৈদ্যুতিক শক করায় শনিবার গেরেজ মালিকের কাছে রিকশাটি নিয়ে যায় এমরান। এ সময় সাদ্দাম এ শকে কোন সমস্যা হবেনা বলায় রিকশাটি বাড়ীতে নিয়ে আসলে রবিবার সকালে ঘুম থেকে উঠে খেলার চলে বাড়ীর উঠুনে থাকা রিকশাটিতে হাত দিলে বিদ্যুতায়িত হয় এমরানের ছেলে আরাফাত হোসেন। এসময় আরাফাতের মা রিনা বেগম ছেলেকে রিকশার পাশে পড়ে থাকতে দেখে চিৎকার করলে শিশুটির পিতা এমরান এসে তাকে নাঙ্গলকোট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক শিশুটিকে মৃত ঘোষণা করেন।

শিশু আরাফাত হোসেন সানির পিতা এমরান হোসেন ও দাদা মহিন উদ্দিন ভান্ডারী বলেন, গ্যারেজ মালিক সাদ্দাম যদি রিকশাটি ঠিক করে দিতো তাহলে আজ আরাফাতের এমন মর্মান্তিক মৃত্যু হতো না। আমরা গ্যারেজ মালিক সাদ্দামের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবী করছি।

অভিযুক্ত গেরেজ মালিক মোহাম্মদ সাদ্দাম বলেন, গত ৫/৬ দিন পূর্বে রিকশাটি আমার কাছ থেকে ক্রয় করে। রিকশা নেয়ার পর থেকে আমার কাছে এ রিকশা ঠিক করতে কেউ আসেনি। আমি শুনেছি চুরি হওয়ার ভয়ে রিকশাটিতে বিদ্যুতের লাইন দিয়ে রাখে এমরান সেই কারণেই এ দুর্ঘটনা ঘটেছে।