পিতার লাশ হত্যা করে  গুম করার সময় পুত্র আটক

স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ৩ সপ্তাহ আগে

এন এ মুরাদ ।।
সম্পত্তি নিয়ে কথা কাটাকাটি করায় গভীর রাতে  পিতাকে  হত্যা করেন  জন্মদাতা সন্তান।  পরে লাশ বস্তাবন্দি করে গুম করার  সময় অটোচালকের সহযোগিতায় পুলিশের হাতে আটক হন ওই ঘাতক। মঙ্গলবার রাতে বাঙ্গরা বাজার থানার দেওড়া গ্রামে এঘটনা ঘটে। নিহত হতভাগা পিতা মাহফুজ মিয়া (৬১) দেওড়া গ্রামের মৃত আবদুস ছামাদের ছেলে।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, মাহফুজ মিয়ার সঙ্গে সম্পত্তি নিয়ে তার ছেলে সোলেমান মিয়ার প্রায়ই বিরোধ চলে আসছিল। ওই বিরোধের জের ধরে মঙ্গলবার রাতে কথা কাটাকাটির একপর্যায়ে সোলেমান মিয়া তার বাবা মাহফুজ মিয়াকে  হত্যা করে লাশ বস্তাবন্ধি করে রাখেন।
বুধবার সকালে কয়েকটি তুষের বস্তার সঙ্গে বাবার বস্তাবন্দি লাশটিও একটি অটোরিকশায় তুলে নেন। তুষগুলো একটি দোকানে বিক্রি করে বস্তাবন্দি লাশ  গুম করার উদ্দেশ্য মেটংঘর নিয়ে যায়। তখন গাড়ীতে থাকা বস্তা নিয়ে  অটোচালকের সন্দেহ হলে তিনি সোলেমানকে জিজ্ঞেস করেন।  সোলেমান জানান এই বস্তায় তার বাবার লাশ। সে বাবাকে হত্যা করেছে। লাশটি গুম করতে এখানে  নিয়ে আসছে। তখন  অটোচালকের সহযোগিতা চায়।
এ সময় অটোচালক তাকে সহযোগিতা না করে  গাড়িতে থাকা লাশের বস্তা নিয়ে  গ্রামে ফিরে যান এবং এলাকাবাসীকে জানিয়ে দেন।
খবর পেয়ে পুলিশ  ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে। এ সময় ঘাতক  সোলেমান মিয়াকে পুলিশ  গ্রেফতার করে।
স্হানীয়  মেম্বার  দুলাল মিয়া বলেন, লাশ গুম করার সময় অটোচালক  বুদ্দিন বিষয়টি সন্দেহ করেন, তখন সে লাশ নিয়ে গ্রামে এসে আমাকে বললে আমি চেয়ারম্যান সাহেবকে  এই হত্যাকান্ডের কথা জানাই।
বাঙ্গরা বাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কামরুজ্জামান তালুকদার বলেন, সন্তানের হাতে পিতা খুনের ঘটনায় নিহতের স্ত্রী বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছেন। গ্রেফতার সোলেমান মিয়াকে আদালতের মাধ্যমে কুমিল্লা জেল হাজতে প্রেরণ করা হয়েছে।  নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য (কুমেক) মর্গে পাঠানো হয়েছে।