প্রার্থীতা প্রত্যাহারের বিষয়ে ২৬ মে সিদ্ধান্ত নেব -ইমরান খান

কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দদের সাথে বৈঠক
স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ১ মাস আগে

স্টাফ রিপোর্টার।।

কুমিল্লার বর্ষিয়ান আওয়ামী লীগ নেতা প্রয়াত অধ্যক্ষ আফজল খানের বড় ছেলে ও কুমিল্লা চেম্বারের সভাপতি মাসুদ পারভেজ খান ইমরান আজ মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৯টায় দৈনিক আমাদের কুমিল্লাকে জানান, আসন্ন কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচনকে কেন্দ্র করে আজ (মঙ্গলবার) কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দদের সাথে আমাদের বৈঠক হয়েছে।

আমি প্রার্থীতা প্রত্যাহারের বিষয়ে কোন কথা বলিনি। যারা বলেছে আমি প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছি তারা ভুল বলেছে এবং মিথ্যা বলেছে। আমি নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়াব কি না তা আগামী ২৬ মে বৃহস্পতিবার সিদ্ধান্ত নিব।

কুসিক নির্বাচনে আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী প্রার্থী ও কুমিল্লা চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি মাসুদ পারভেজ খান ইমরান, তার বোন কুমিল্লা মহানগর আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি , সংরক্ষিত মহিলা আসনের সংসদ সদস্য আঞ্জুম সুলতানা সীমাকে নিয়ে বৈঠক করেন আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের সাথে। এসময় দলের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আ ফ ম বাহাউদ্দীন নাছিম, দপ্তর সম্পাদক ব্যরিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠক শেষে দলের যুগ্ম-সাধারণ আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম সাংবাদিকদের জানান, আওয়ামী লীগ একটি বৃহৎ রাজনৈতিক দল। আওয়ামী লীগে প্রতিযোগিতা থাকে। কিন্তু দিন শেষে ঐক্যবদ্ধ হতে ভুল করে না। আসন্ন কুমিল্লা সিটি করপোরেশন নির্বাচনেও তাই হতে যাচ্ছে। কুমিল্লা ঐতিহ্যবাহী আওয়ামী পরিবার বীর মুক্তিযোদ্ধা আফজাল খানের পরিবার। তারা অতীতেও দলের জন্য ত্যাগ স্বীকার করেছে। কুমিল্লা সিটি নির্বাচনেও তাই করতে যাচ্ছে। বীর মুক্তিযোদ্ধা প্রয়াত আফজাল খানের ছেলে মাসুদ পারভেজ খান তার প্রার্থীতা থেকে সরে দাঁড়াবেন বলে সিদ্ধান্ত হয়েছে। আগামী ২৬ মে নির্বাচন কমিশনের পূর্বনির্ধারিত প্রার্থীতা প্রত্যাহারের শেষ দিন। শেষ দিন তিনি প্রার্থীতা প্রত্যাহার করে দলের প্রার্থীকে বিজয়ী করার জন্য প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মাসুদ পারভেজ খান ইমরান বলেন, আমার প্রার্থীতা প্রত্যাহারের বিষয়ে বৈঠকে কোন সিদ্ধান্ত হয়নি। কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ তারা তাদের কথা বলেছেন আর আমরা আমাদের কথা বলেছি। আমি নেতৃবৃন্দকে জানিয়েছি আগামী ২৬ মে প্রার্থীতা প্রত্যাহারের বিষয়ে আমি সিদ্ধান্ত নেব , এখন না।