ফেনীতে মাদক মামলায় দুজনের যাবজ্জীবন

ফেনী প্রতিনিধি ।।
প্রকাশ: ৮ মাস আগে

ফেনীতে পৃথক মামলায় দুজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। বৃহস্পতিবার (২২ জুন) দুপুরে ফেনীর অতিরিক্ত দায়রা জজ সৈয়দ মো. কায়সার মোশাররফ ইউসুফ এ রায় ঘোষণা করেন।

দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- মো. মোশাররফ হোসেন (৫৮) ও মো. সহিদ উল্যাহ (৫০)। মোশাররফ হোসেন ফেনীর ছাগলনাইয়া উপজেলার বাঁশপাড়া এলাকার বাসিন্দা। সহিদ উল্যাহ ফেনী সদর উপজেলার কাজিরবাগ ইউনিয়নের গিল্লাবাড়ীয়া গ্রামের বাসিন্দা।

এজাহার সূত্র জানায়, ২০১৩ সালের ৪ এপ্রিল রাত ৮টার দিকে ফেনী সদর উপজেলার কাজিরবাগ ইউনিয়নের গিল্লাবাড়ীয়া সীমান্ত চৌকির বিজিবি সদস্যদের হাতে ২১ বোতল ফেনসিডিলসহ গ্রেফতার হন মো. সহিদ উল্যাহ। এ ঘটনায় বিজিবির হাবিলদার মো. আবদুল হান্নান বাদী হয়ে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করেন। তদন্ত শেষে ফেনী মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) যোবাইদুন নাহার ওই একই বছরের ৫ মে আদালতে একমাত্র আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। এ মামলায় মোট পাঁচজনের সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়। দীর্ঘ শুনানি শেষে বৃহস্পতিবার রায় ঘোষণা করা হয়। রায়ে মো. সহিদ উল্যাহকে যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড ও পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও এক মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

২০১৪ সালের ২১ ফেব্রুয়ারি রাতে ৩০ বোতল ফেনসিডিলসহ মোশাররফ হোসেনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এ ঘটনায় ছাগলনাইয়া থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক (এএসআই) আলা উদ্দিন বাদী হয়ে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা করেন। একই বছরের ১৪ মার্চ ছাগলনাইয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মাসুদ রানা তদন্ত শেষে একমাত্র আসামি মোশাররফ হোসেনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। এ মামলায় চারজনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে বৃহস্পতিবার দুপুরে বিচারক রায় ঘোষণা করেন। এতে আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ছাড়াও পাঁচ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও এক মাসের বিনাশ্রমে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

আদালতে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী দিজেন্দ্র কুমার কংশ বণিক জানান, আসামিরা গ্রেফতারের পর জামিনে ছাড়া পেয়ে পলাতক। তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ সন্দেহাতীতভাবে প্রমাণিত হওয়ায় আদালত যাবজ্জীবন সশ্রম কারাদণ্ড দেন।