বলীঘর দায়েমিয়া মাহবুবিয়া এতিমখানা নিয়ে মিথ্যা সংবাদের প্রতিবাদ

স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ২ সপ্তাহ আগে

গত ৫জুন “ভোরের আলো” অনলাইনে প্রকাশিত শিরোনামে “কুমিল্লার মুরাদনগরে এতিমের নাম করে টাকা আত্মসাত” সংবাদ আমার দৃষ্টিগোচর হয়েছে।
প্রকাশিত সংবাদের তথ্য ও অভিযোগ সম্পূর্ণ রুপে মিথ্যা, বানোয়াট, ভিত্তিহীন ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত। জনৈক ব্যক্তি পূর্ব শত্রুতার জের ধরে উক্ত সংবাদটি প্রচারের পেছনে ভুল তথ্য প্রদান করেছেন।
সংবাদের প্রথমাংশে এতিমদের নামে বরাদ্দকৃত লাখ-লাখ টাকা আত্মসাতের অভিযোগটি হাস্যকর। এতিম নাই কথাটিও অসত্য। এখানে প্রকৃত এতিম,অনাথ ও দুস্থসহ ৫৮ জন শিকার্থী রয়েছে। তাদের ভরণপোষণের মাসে খরচ হয় প্রায় ৮০ হাজার টাকা।
২০২০ সাল থেকে একজন এতিম প্রতি মাসে ২ হাজার টাক পায়। এর আগে ১ হাজার টাকা করে পেত। এই টাকা দিয়ে টাকা তাদের ব্যয় মিটানো অসম্ভব। তাই এতিমখানার প্রতিষ্ঠাতা আলহাজ্ব সৈয়দ ফরিদুর রহমান, সভাপতি ওয়াদুদ সরকার ও স্থানীয় দানশীল ব্যক্তিদের অর্থায়ানে প্রতিষ্ঠানটি পরিচালিত হয়ে আসছে।
সংবাদের পরের অংশে এতিমখানাটি মনগড়া কমিটি দিয়ে পরিচালিত হয়ে আসছে বলে অভিযোগ তুলেছেন। এই অভিযোগ সম্পূর্ণ অসত্য । প্রকৃত ঘটনা হচ্ছে মাদ্রাসা ২০০৭ সালে প্রতিষ্ঠিত। ২০১২ সালে নিবন্ধন পায়। তারপর থেকে সরকার অনুমোদিত কমিটির নিয়মে মাদ্রসা পরিচালিত হয়ে আসছে। বর্তমান কমিটির আরো একবছর মেয়াদ আছে। যিনি অভিযোগ করেছেন তিনিও পূর্বের কমিটির সদস্য ছিলেন।

এলাকাবাসীকে না জানিয়ে মাদ্রাসা স্থানান্তর করার ব্যাপারে প্রকাশিত সংবাদে বলা হয়েছে- যা পুরো অসত্য ও কাল্পনিক।
কমিটির সিদ্ধান্ত মোতাবেক এলাকাবাসির সাথে আলোচানা করে এতিমখানার দানকৃত জায়গার ৩৬ শতাংশ সম্পত্তির মধ্যে ৬ শতকের উপর মাদ্রাসা স্থানান্তর করা হয়েছে। স্থানান্তরের প্রয়োজনীয় কাগজপত্র জেলা ও উপজেলা সমাজসেবা অফিসে জমা আছে এবং বিষয়টি সংস্লিষ্ট কর্মকর্তারা বিষয়টি অবগত।
প্রকৃতপক্ষে হীন স্বার্থ চরিতার্থ করার জন্য এতিমখানা ও পরিচালনা কমিটির সভাপতিসহ মুহতামিমকে সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করতে এধরনের সংবাদ পরিবেশন করেছেন। সংবাদটি পরিবেশনের ক্ষেত্রে সংবাদপত্রের বস্তুনিষ্ঠতা আড়াল করা হয়েছে বলে আমি মনে করি।
আমি মাওলানা আবু ইউসুফ ও মাদ্রসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি ওয়াদুদ সরকার উক্ত সংবাদের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। সেই সাথে ভবিষ্যতে এই ধরণের মিথ্যা সংবাদ প্রকাশ থেকে বিরত থাকার জন্য বিনীত আহবান জানাচ্ছি।