সেপ্টেম্বরে কুমিল্লায় আসতে পারেন প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা !

# ঘোষনা দিতে পারেন বিভাগের
বিশেষ প্রতিনিধি ।।
প্রকাশ: ১০ মাস আগে

প্রধান মন্ত্রী ও আওয়ামীলীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা আগামী সেপ্টেম্বর মাসের শেষ দিকে কিংবা অক্টোবর মাসের শুরুতেই কুমিল্লায় আসতে পারেন। এদিন তিনি কুমিল্লার টাউন হল মাঠে আওয়ামীলীগ আয়োজিত এক জনসভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখবেন। যে নামেই হোক , এ জনসভাতেই দিতে পারেন কুমিল্লা বিভাগের ঘোষণা। বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের একাধিক কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির নেতাদের সাথে কথা বলে এ তথ্য জানা গেছে। তবে এখনো কুমিল্লা জনসভার দিনক্ষণ ঠিক হয়নি। সূত্র জানায়, কুমিল্লার জনসভার সাথে একই দিন খুলনার জনসভারও দিনক্ষণ ঠিক করা হবে।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির সম্পদকীয় পদের তিনজন নেতা এই প্রতিবেদককে গতকাল শনিবার বিকেলে পৃথক ভাবে জানান, মাননীয় প্রধান মন্ত্রী নির্বাচনের আগে সারা দেশের বড় বড় শহরগুলিতে যে জনসভা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে তারই ধারাবাহিকতায় কুমিল্লাও জনসভা করবে। এবং এই জনসভায় বিভাগসহ গুরুত্বপূর্ণ বেশ কিছু উন্নয়ন কর্মকান্ডের ঘোষনা প্রধান মন্ত্রী দিতে পারেন।
আওয়ামীলীগের কার্যানির্বাহী কমিটির কুমিল্লা অঞ্চলের এক নেতা দলের গত ১২ আগস্টের কার্যনির্বাহী সংসদের বৈঠকের কথা উল্লেখ করে বলেন, আমাদের সেই বৈঠকে অনেক গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত হয়েছে। এর মধ্যে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী হিসেবে টিকেট পেতে হলে সম্ভাব্য প্রার্থীদের কি কি নিয়মের মধ্যে দিয়ে যেতে হবে তার একটি ধারণা দেন দলের শীর্ষ হাই কমান্ড। এবার আর ২০১৪ এবং ২০১৮ সালের মত মনোনয়ন দেওয়া হবে না বলে পরিস্কার জানিয়ে দিয়ে তিনি বলেন, যারা দলে থেকে দলের নেতা নেত্রীদের বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে বদনাম ছড়াবেন তাদেরকে চিহ্নিত করা হবে। দলের ভাবমূর্তি ক্ষুন্নকারীদের কোন অবস্থাতেই এবার মনোনয়ন দেওয়া হবে না বলে বৈঠকের উদ্ধৃতি দিয়ে এই নেতা জানান।
প্রধান মন্ত্রীর কুমিল্লার জনসভায় বিভাগের ঘোষণা দেওয়া হবে কিনা জানতে চাইলে দলের কার্যানির্বাহী সংসদের চাঁদপুর অঞ্চলের এক নেতা বলেন, কুমিল্লা নামেই হোক আর মেঘনা নামেই হোক কিংবা অন্য যে কোন নামেই হোক নির্বাচনের আগেই কুমিল্লা বিভাগ ঘোষণা করার সম্ভাবনা খুব বেশি। খুব সম্ভবত আসন্ন মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর কুমিল্লা জনসভাতেই এই ঘোষণা দিতে পারে।
কবে নাগাদ কুমিল্লা জনসভার তারিখ ঘোষনা করা হবে জানতে চাইলে আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির অপর এক নেতা বলেন, এই কথা গুলো দলের মুখপত্র ঘোষণা করার আগে আমরা বলার বা ইঙ্গিত দিয়ে কথা বলারও যথাযথ ব্যক্তি না। আগামী ২ সেপ্টেম্বর মাননীয় প্রধান মন্ত্রী ও বঙ্গবন্ধুর কণ্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার সিলেট জনসভার তারিখ ছিল। কিন্তু ঐদিন (২ সেপ্টেম্বর)ঢাকা এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের একাংশ উদ্বোধন করা হবে। ওই দিন ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগ সুধী সমাবেশের আয়োজন করবে। এতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উপস্থিত থাকবেন। যার কারণে সিলেটে দলের জনসভা স্থগিত করা হয়েছে। আগে সিলেট জনসভার তারিখ ফাইনাল করা হবে। পরে খুলনা ও কুমিল্লার জনসভার তারিখ ঘোষণা করা হবে। তবে তা সেপ্টেম্বরের শেষ বা অক্টোবরের প্রথম সপ্তাহের মধ্যে হতে পারে বলে জানিয়েছেন নাম না বলা এই কেন্দ্রীয় নেতা।