হাসপাতালে যাওয়ার পথে চিরনিদ্রায় মা ও ছেলের

দাউদকান্দিতে কাভার্ডভ্যান চাপায় অটোরিকশার ৫ যাত্রী নিহত, রক্তাক্ত মহানন্দ
স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ৪ মাস আগে

দাউদকান্দির আনুয়াখোলা গ্রামের জাহানারা বেগম ও ছেলে সফিউল্লাহ চিকিৎসার জন্য যাচ্ছিলেন গৌরীপুর হাসপাতালে। যদিও দুর্ঘটনার কবলে এখন চিরনিদ্রায় মা ও ছেলে। একই সাথে পরিবারের ২ সদস্যকে হারিয়ে আহাজারি করছেন পরিবারের অন্য সদস্যরা। রোববার সকালে কুমিল্লার দাউদকান্দির মহানন্দ এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। এতে আরও তিনজনসহ মোট ৫ জন মারা যান। স্থানীয়রা বলছেন সড়কে নিয়ন্ত্রণহীন ভাবে ওভারটেকিংই ঝরছে এ পাঁচজনের প্রাণ।

চাঁদপুরগামী একটি কাভার্ডভ্যান বিপরীত দিক থেকে আসা সিএনজি চালিত অটোরিকশাকে ধাক্কা দিলে অটোরিকশাটি দুমরে মুচড়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই ৪ জন নিহত হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে আহতদের উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসক আরও একজনকে মৃত ঘোষণা করেন।
দাউদকান্দির কালাসোনা দক্ষিণ নগর গ্রামের মৃত চিত্তরঞ্জন মন্ডলের ছেলে পীযুষ মণ্ডল (২৮), আনুয়াখোলা এলাকার মৃত শরাফাত উল্লাহর স্ত্রী জাহানারা বেগম (৫৫), আনোয়ার খোলা এলাকার মৃত শরাফাত উল্লাহর ছেলে মোহাম্মদ শফিউল্লাহ (২৪), দক্ষিণ নগর এলাকার মোহাম্মদ রুহুল আমিনের ছেলে মো. মনির হোসেন (৩৫) ধরজ খোলা এলাকার মোহাম্মদ অহিদের ছেলে মোহাম্মদ ইসমাইল (৩৮)।

ওসি মোজাম্মেল হক জানান, মালবাহী একটি কাভার্ডভ্যান কচুয়ার দিকে যাচ্ছিল। অপরদিকে ৫ জন যাত্রী নিয়ে সিএনজি চালিত একটি অটোরিকশা গৌরিপুরের দিকে যাচ্ছিল। যানবাহন দুটি মহানন্দ বাজার এলাকায় এলে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এসময় ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারান ৪ জন। মুমূর্ষু অবস্থায় আরও একজনকে উদ্ধার করে দাউদকান্দি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকেও মৃত ঘোষণা করেন। দুর্ঘটনা কবলিত বাহন দুটি হেফাজতে নেওয়া হয়েছে। কাভার্ডভ্যান চালক ও সহকারী পলাতক রয়েছেন। এ ঘটনায় আইনি প্রক্রিয়া চলছে।