বৃহস্পতিবার, ২০শে জুন, ২০১৯ ইং | ৬ই আষাঢ়, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ
শাহবাজপুর সেতুতে ভাঙন: ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে দুর্ভোগপিতা খুন, পুত্র আটক২০২০ সালের মধ্যে শতভাগ বিদ্যুৎবাংলাদেশের বিপক্ষে খেলতে পারে স্টোইনিস: ল্যাঙ্গারশিখর ধাওয়ানের বিশ্বকাপ শেষ২৪ ঘণ্টায় ২ বিলিয়ন টন বরফ গলে গ্রিনল্যান্ডেরতিনবার গোল করেও গোলশূন্য ড্র ব্রাজিলেরনিজেদের সেরা একাদশ খুঁজে হয়রান অস্ট্রেলিয়াআফগানিস্তানকে ‘না’ করে দিলো ভারতীয় বোর্ডপ্রিপেইড মিটার নিয়ে ভোগান্তির যত অভিযোগদেশের প্রথম লোহার খনির সন্ধান‘আগে কাগজে বইল্যা ভোট দিছি, অহন টিপ দিলে হইয়া যায়’স্ত্রীর বিরুদ্ধে স্বামীর গায়ে গরম তেল ঢেলে দেওয়ার অভিযোগকুমিল্লায় পিকআপ ভ্যানের ধাক্কায় সিএনজির দুই যাত্রী নিহতকুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারী কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ রতন সাহার দূর্নীতির আমলনামা # মসজিদের কোটি টাকার কোন হিসেব নেই # বেশি টাকা লোপাট হয়েছে কর্মচারী কল্যাণ তহবিলে # ক্রীড়া প্রতিযোগিতার নামে উত্তোলন করা হয়েছে ২৪ লাখ টাকা # অধিভুক্তি ফি খাতে ১৭ লাখ টাকা বেশি উত্তোলন করা হয়েছে # ব্যাপক অনিয়ম রয়েছে পরিবহন খাতেও # ছাত্র সংসদ না থাকলেও টাকা উত্তোলন ও ব্যয় হচ্ছে প্রতিনিয়ত # ল্যাবেরটরি ফান্ডের ১৬ লাখ ৫৫ হাজার টাকা উত্তোলন হয় অফিস সহায়ক দ্বারা # ব্যবহারিক পরীক্ষার ফি হতে লুট হয় ২৪ লাখ ২৯ হাজার টাকা # কলেজ উন্নয়ন খাতের নামে ৩৫ লাখ টাকা লোপাট # প্রতিটি সেক্টরেই রয়েছে দূর্নীতি ও অনিয়মশরীর চর্চার ভিডিও দিয়ে চমকে দিলেন সালমান খানক্রাইস্টচার্চের মসজিদে হামলার ভিডিও শেয়ার করায় ২১ মাসের কারাদণ্ডছক্কার বিশ্বরেকর্ড গড়লেন মরগ্যানজাপানে শক্তিশালী ভূমিকম্প, সুনামি সতর্কতা জারিঅস্ট্রেলিয়া ম্যাচটাও খুব গুরুত্বপূর্ণ : রাজ্জাক

ব্যস্ততা বাড়ছে কুমিল্লার দর্জি পাড়ায়

স্টাফ রিপোর্টার।। আসন্ন ঈদুল ফিতর উপলক্ষে ব্যস্ততা বাড়ছে কুমিল্লার দর্জি পাড়ায়। দম ফেলার ফুসরত নেই মালিক থেকে শুরু করে কারিগরদের পর্যন্ত। এখন আর নগরীর বড় বড় দর্জি দোকান গুলোতে নতুন কোন অর্ডার নিচেছ না। পুরনো অর্ডার গুলোই সময় মত কাস্টমারকে দেয়ার জন্য প্রানপণ চেষ্টা করছেন দর্জি কারিগড়রা।
কুমিল্লা মহানগরীর প্রানকেন্দ্র কান্দিরপাড়ের দর্জির দোকানগুলোতে ঘুরে ও দর্জি কারিগরদের সাথে কথা বলে জানা যায়,গত দু একদিন ধরে তাদের দোকানগুলোতে ব্যস্ততা বেড়েই চলছে। শিফটে কাজ করছে দর্জিরা। মূল কারিগররা খদ্দেরের সাইজ অনুযায়ী কাপড় কেটে দিচ্ছেন। আর কাটা কাপড়গুলো সেলাই করে তৈরী করে খদ্দেরকে নির্দিষ্ট সময় অনুযায়ী বুঝিয়ে দিচ্ছেন।

কুমিল্লা সমবায় অনন্যা টেইলার্সের স্বত্বাধিকারী মো:মশিউর রহমান জানান, সারা বছরজুড়ে যে পরিমান ব্যস্ততা থাকে কুমিল্লার দর্জির দোকানগুলোতে তারচেয়ে দ্বিগুন বেশী ব্যস্ত থাকতে হয় ঈদুল রমজান মাসে। তিনি জানান, এ বছর আলাদা করে নতুন ডিজাইনের ফ্যাশন এখনো শুরু না হলেও খদ্দেরের রুচি-রং ডিজাইনের মধ্যে ব্যাপক ভিন্নতা রয়েছে। যার কারনে আমাদেরকেও ক্যাটালগ সংগ্রহ করতে হয় প্রচুর। মো:মশিউর রহমান জানান, প্যান্ট তৈরীতে তিনি ৫শ টাকা নেন,এছাড়া সেলোয়ার কামিজ আকার আকৃতি-নকশার উপর বিবেচনা করে সর্বনি¤œ ২৫০ টাকা থেকে শুরু করে সবোর্চ্চ সাড়ে পাঁচশ টাকা পর্যন্ত নেন। এছাড়াও শার্ট তৈরীতে ৩শ-সাড়ে তিনশ টাককা নেন।

এখন ই্টারনেটের যুগ। আর ইন্টারনেটের কল্যানে দেশী বিদেশী বিভিন্ন ডিজাইন সংগ্রহে রাখে তরুণীরা। এসব ডিজাইন নিয়ে আমাদের কাছে আসে। তরুণীর পছন্দকে প্রাধান্য দিয়ে বিশেষজ্ঞ কারিগর দ্বারা তৈরী করে দেই পছন্দের পোষাকটি বললেন খন্দকার হক টাওয়ারে দর্জি ও লেডিস ফ্যাশনের স্বত্বাধিকারী মো: নুরনবী। তিনি জানান, দর্জি হিসেবে প্রায় একযুগ হতে চলছে। এ সময়ের গত পাঁচ বছর নগরীর রেইসকোর্স এলাকার ইষ্টার্ণ প্লাজায় পাঁচ বছর দর্জিগিরি ছিলেন। এখন তিনি খন্দকার হক টাওয়ারে আছেন। তার দোকানে অন্য সময়ে ৩জন থাকে,ঈদ উপলক্ষে ছয়জন কাজ করছে। তিনি জানান, অন্য বারের তুলনায় এ বছর মোটামুটি খদ্দেরের সংখ্য বেশ ভালো। আগামী ২৫ রমজান পর্যন্ত অর্ডার নেয়া সম্ভব হবে। তারপর আর হয়তো আর অর্ডার নেয়া সম্ভব হবে না।

এদিকে খন্দকার হক টাওয়ার ছাড়াও ইষ্টার্ণ ইয়াকুব প্লাজা,সুফিয়া ম্যানশন,নিউমার্কেট এলাকায় দর্জিপাড়ায় ঘুরে দেখা যায় দর্জির দোকানগুলোতে মাপ দিতে ব্যস্ত সময় পার করছে তরুণ-তরুণীরা। শার্ট-প্যান্ট বানাতে আসা তরুণ সুমন ইউসুফ জানান,শপিং মলে নিজের জন্য মানানসই রং ও ডিজাইনের মিল না থাকায় দর্জির দোকানে হাজির হলাম। আর যাই হউক ঈদে নতুন পোষাক ছাড়া উৎসবের আমেজে ভাটা পড়াতে চাই না। এমন কথাই বললেন প্লাজুর সাথে মিলিয়ে জামা তৈরী করতে আসা কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া সরকারী কলেজের অনার্স চতুর্থ বর্ষের ছাত্রী আফসানা মীম। তিনি জানান, ঈদে বেড়াতে যাবো আনন্দ করবো আর সে আনন্দের অন্যতম প্রধান অনুষঙ্গ পোষাকটি যদি মনের মত না হয় তাহলে আনন্দটাই মাটি হয়ে যাবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন............
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *