আমরা সীমান্ত এলাকায় হত্যার সংখ্যা শূণ্যের ঘরে নিয়ে আসবো – বিজিবি মহাপরিচালক

বিবিরবাজার সীমান্ত পরিদর্শনে এসে এসব বলেন তিনি
জাহিদ হাসান নাইম
প্রকাশ: ১০ মাস আগে

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) মহাপরিচালক মেজর জেনারেল এ কে এম নাজমুল হাসান, এনডিসি, পিএসসি বিজিবি’র কুমিল্লা সেক্টরের আওতাধীন কুমিল্লা এবং ফেনী ব্যাটালিয়নের সীমান্ত এলাকা পরিদর্শন করেন।

বিজিবি’র বিভিন্ন ইউনিটের অপারেশনাল, প্রশিক্ষণ ও প্রশাসনিক কার্যক্রম পরিদর্শনের অংশ হিসেবে বৃহস্পতিবার (৩১ আগষ্ট) সকালে বিজিবি’র কমিল্লা সেক্টর দপ্তর ও কুমিল্লা ব্যাটালিয়ন (১০ বিজিবি) এর ব্যাটালিয়ন সদর পরিদর্শন করেন। এসময় তিনি কোয়ার্টার গার্ড সালাম গ্রহণ ও বৃক্ষরোপন করে।

ব্যাটালিয়ন পরিদর্শন শেষে বিজিবি মহাপরিচালক বিবিরবাজার বিওপি এবং বিবিরবাজার আইসিপি পরিদর্শনকালে বিএসএফ গোকুলনগর সেক্টরের ভারপ্রাপ্ত সেক্টর কমান্ডার রাজেশ সিং কানওয়ারের সাথে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন। ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফের একটি চৌকস দল বিজিবি মহাপরিচালককে গার্ড অব অনার প্রদান করেন। এ সময় তিনি উপস্থিত বিএসএফ সদস্যদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন।

পরিদর্শন শেষে সাংবাদিকদের সাথে কথোপকথনে বিজিবি মহাপরিচালক বলেন, বিবিরবাজার আইসিপি আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। আমরা এই স্থলবন্দরটি উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছি। এছাড়া, মাদক নিয়ে বিজিবি সবসময় জিরো টলারেন্সে রয়েছে। এটা নিয়ে সবসময় বিজিবি সতর্ক অবস্থানে রয়েছে।

জাতীয় নির্বাচনে বিজিবির অবস্থান প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তিনি বলেন, নির্বাচনকে ঘিরে আমরা সীমান্ত রক্ষার পাশাপাশি দেশের অভ্যন্তরেও অন্যান্য আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সাথে কাজ করি। আসন্ন জাতীয় নির্বাচনকে ঘিরে বিজিবি সর্বোচ্চ প্রস্তুতি নিয়ে রেখেছে। দেশের জনগণের জানমালের সর্বোচ্চ নিরাপত্তা দিতে বিজিবি বদ্ধপরিকর।

সীমান্ত হত্যা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, সীমান্তে হত্যা আমরা কেউ ই কাম্য করি না। বিজিবি সবসময় এর জোরালো প্রতিবাদ করে। গত পাঁচ মাস ধরে সীমান্তে হত্যা অনেকাংশে কমেছে। সীমান্তে হত্যাকে আমরা শূণ্যের ঘরে নিয়ে আসতে চাই।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, বিজিবি সদর দপ্তরের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ, সরাইল রিজিয়নের রিজিয়ন কমান্ডার, কুমিল্লা সেক্টরের সেক্টর কমান্ডার এবং সংশ্লিষ্ট ব্যাটলিয়নের অধিনায়কসহ বিজিবি’র অন্যান্য কর্মকর্তাবৃন্দ।