কুমিল্লায় তীব্র গরমে বাড়ছে ডায়রিয়া ও নিউমোনিয়া রোগীর সংখ্যা

# অভিভাবকদের সতর্ক করলেন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা # আক্রান্তদের মধ্যে শিশুরাই বেশি
মোস্তাফিজুর রহমান।।
প্রকাশ: ৭ মাস আগে

একদিকে প্রখর রোদ অন্যদিকে তীব্র গরম। তীব্র গরমে কুমিল্লার হাসপাতাল গুলোতে বাড়ছে ডায়রিয়া ও নিউমোনিয়া রোগীর সংখ্যা। গরমের কারণে গত কয়েক সপ্তাহ ধরে কুমিল্লার সরকারি হাসপাতাল গুলোতে ছিলো ডায়রিয়া ও নিউমোনিয়া রোগীদের উপচে পড়া ভীড়। শুধু কুমিল্লা সদর হাসপাতালে প্রতি দিন ডায়রিয়া রোগী ভর্তি হতো ১৫ থেকো ২০ জন। পাশাপাশি নিউমোনিয়া ও ফ্রক্সের রোগীও বেড়েছে অস্বাভাবিক হারে।
গতকাল বৃহস্পতিবার সরেজমিনে কুমিল্লা নগরীর বিভিন্ন হাসপাতাল ঘুরে দেখা যায়, হাসপাতাল গুলোতে অন্য রোগীর তুলনায় ডায়রিয়া এবং নিউমোনিয়া রোগীর সংখ্যাই বেশি। পাশাপাশি জ্বর, ফ্রক্স সহ নানা রোগে আক্রান্ত হচ্ছে মানুষ। আক্রান্ত রোগীদের মধ্যে বয়স্ক রোগীর তুলনায় শিশু রোগীর সংখ্যাই বেশি দেখা যায়।
কুমিল্লা সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা.এম এ করিম খন্দকার জানান, আমাদের এখানে সারা বছর সকল ধরনের রোগীই আসে। এর মধ্যে ডায়রিয়া এবং নিউমোনিয়া রোগটা গরম আসলেই বেশি দেখা দেয়। গত কয়েক দিন আগে ডায়রিয়া এবং নিউমোনিয়ার প্রচুর রোগী আসছে আমাদের এখানে। পাশাপাশি ফ্রক্সের রোগীও দেখা যায় অনেক। গরমের তীব্রতায় পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি পান না করায় এবং অতিরিক্ত ঘামের কারনে এই রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। প্রাপ্ত বয়স্কদের তুলনায় অপ্রাপ্ত শিশুই বেশি এই রোগে আক্রান্ত হচ্ছে।
তিনি আরো জানান, গরম পানি পান করলে যেমন সমস্যা হয় ঠিক তেমনি অতিরিক্ত ঠান্ডা পানিও পান করলে গলায় ইনফেকশন হয়। তখন বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে।
কুমিল্লার বিশিষ্ট শিশু রোগ বিশেষজ্ঞ ডা. ইকবাল আনোয়ার বলেন, বড়দের তুলনায় শিশুরাই বেশি ডায়রিয়া এবং নিউমোনিয়া আক্রান্ত হচ্ছে। এই রোগ থেকে বাঁচতে হলে শিশুরা যেন রোদের মধ্যে না যায় সেই দিকে খেয়াল রাখতে হবে। ঘরে অবস্থান করলে দরজা জানালা খুলে রাখতে হবে। শিশুরা দৈনিক ৬ বারের কম প্রসাব করলে মনে করতে হবে তার শরীরে পানি স্বল্পতার অভাব রয়েছে । সেই ক্ষেত্রে বেশি বেশি পানি পান করাতে হবে। প্রতিদিন এক থেকে দুই বার গোসল করাতে হবে। এ সময় শরীরে তেল কিংবা পাউডার মাখানো যাবে না । কারণ এটা উপকারের চেয়ে ক্ষতিই বেশি হয়। এই গরমে শিশুরা যদি জ্বর, বমির ভাব, দূর্বলতা সহ কোন সমস্যা দেখা দেয় তাহলে দেরি না করে তাকে যেন দ্রুত ডাক্তারের কাছে নিয়ে যায়। সে ক্ষেত্রে বাবা মাকে অধিক সচেতন থাকতে হবে

এ বিষয়ে কুমিল্লা ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. নিসর্গ মেরাজ চৌধুরী বলেন, সারাদেশে তীব্র গরমের কারণে ডায়রিয়া ও নিউমোনিয়া রোগে শিশুরাই বেশি আক্রান্ত হচ্ছে। এটা থেকে বাঁচার জন্য ছোট বড় সবাই প্রখর রোদে যেন না যায় এবং প্রচুর পরিমানে পানি পান করতে হবে। বাচ্চাদের ক্ষেত্রে বাবা মা অনেক সচেতন হতে হবে। বাচ্চারা যাতে অতিরিক্ত না ঘামে সে জন্য ছায়া এবং ঠান্ডার মধ্যে রাখতে হবে।