মোবাইল ও টিভি সাংবাদিকতা

খালেদ সাইফুল্লাহ
প্রকাশ: ৬ মাস আগে

অনলাইন সাংবাদিকতা গত কয়েকবছর ধরে মূলধারা ও বিকল্পধারার সংবাদমাধ্যমগুলোর জন্য একটি
বিশ্বাসযোগ্য তথ্য প্রবাহের সূত্র হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে। কেননা, এই অনলাইন সাংবাদিকরাই
যেকোন ঘটনার খবর দ্রুত প্রকাশ করতে পারেন।
অনলাইনে দ্রুত খবর প্রকাশের সুযোগ থাকে। দ্রুত খবর কখনও নির্ভুল না হয়ে গুজব ছড়াতে কাজ
করে। তাই শতভাগ নিশ্চিত না হয়ে খবর প্রকাশের প্রতিযোগিতা করা উচিত নয়।
যেহেতু সবার হাতে এখন মোবাইল ইন্টারনেট। তাই যে কোন খবর অনলাইনে প্রকাশ করে তা মানুষের
কাছে দ্রুত পৌছানো যায়। এক্ষেত্রে সতর্কতামূলক, সচেতনতামূলক সংবাদ প্রকাশে অনলাইন
প্লাটফর্ম ভালো ভূমিকা রাখে। যেমন দূর্যোগ থেকে মানুষকে সতর্ক করা।
২০২২ সালে রিউমার স্ক্যানার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ও দেশীয় গণমাধ্যমে প্রচারিত ১৪০০
গুজব, ভুয়া খবর ও বিভ্রান্তিকর তথ্য শনাক্ত করেছে। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি গুজব প্রকাশিত
হয়েছে ধর্মীয় বিষয়ে। এছাড়া রাজনীতি, জাতীয়, খেলাধুলা ও শিক্ষা, রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ, কাতার
বিশ্বকাপ নিয়েও ভুয়া ও বিভ্রান্তিকর তথ্য শনাক্ত হয়েছে। দেখা গেছে, সবচেয়ে বিশ্বস্ত
গণমাধ্যমের অনলাইন ভার্সনেও ভুল তথ্যসংবলিত খবর বা ভুয়া খবর প্রচার হচ্ছে।

অনলাইন সাংবাদিকতায় ভালো করতে হলে-
– ভালো সোর্স থাকতে হবে।
– মোবাইলের প্রোগ্রাম ও দ্রুত কম্পোজ করা জানতে হবে।
– ল্যাপটপ, ট্যাব ও কম্পিউটারে কাজে অভিজ্ঞ হতে হবে।
– মোবাইলে ভিডিও এডিট, সাউন্ড প্রোগ্রাম, ছবি এডিটিং সম্পর্কে ভালো ধারনা থাকতে হবে।
– উপজেলার সহকর্মীদের সাথে সুসম্পর্ক থাকতে হবে।
– স্বচ্ছ সাংবাদিকতার চর্চা করতে হবে।

যে খবরে যত্নবান হবেন
১. দূর্ঘটনা- দূর্ঘটনার খবর প্রকাশ তথা সংখ্যা প্রকাশে নিশ্চিত হতে হবে। শোনা কথায় তা প্রকাশ
করা যাবে না। অধিকতর নির্ভরযোগ্য সোর্স থেকে ক্রসচেক দিয়ে তা নিশ্চিত হতে হবে।

উপজেলা ভিত্তিক সাংবাদিকদের প্রশিক্ষণ কর্মশালা / আয়োজনে বাংলাদেশ সাংবাদিক সমিতি, কুমিল্লা জেলা
২. ধর্মীয় উস্কানিমূলক সংবাদ প্রকাশ থেকে বিরত থাকা। কখনও কখনও ঘটনা সত্য হলেও তা
প্রকাশ করলে অন্যত্র দাঙা বা গোলযোগ বাঁধতে পারে। তাই সহিংসতা রোধ করতে আইনশৃংখলা
বাহিনীকে সহযোগিতা করতে হবে।
৩. রাজনৈতিক গোলযোগ আজকাল লাইভ করেন অনেকে। সঠিক তথ্য বিকৃত করেও কেউ কেউ সেটা
ব্যবহার করেন। এ থেকে বিরত থাকা উচিত।

টিভি সাংবাদিকতা
১. সাংবাদিকতায় দক্ষ হতে হবে।
২. সংবাদ মূল্য বুঝে সংবাদে যেতে হবে।
৩. শুদ্ধ উচ্চারন জানা জরুরী
৪. পোষাকে মার্জিত হতে হবে
৫. কথা বলা ও আচরনে বিনয় থাকতে হবে
৬. সোর্স থাকতে হবে।
৭. তাড়াহুড়ো করে নিজেকে অস্থির করা যাবে না, আতঙ্ক তৈরী করা যাবে না।
৮. বড় একটি স্ক্রিপ্টকে ছোট করাই টিভি সাংবাদিকতার মূল বৈশিষ্ট্য। কারণ যা ভিজ্যুয়ালে দেখাবে
তা বিবরনে বলা প্রয়োজন নেই।

লাইভ করার জন্য-
১. বয়া, ক্যামেরা, মাইক্রোফোন বা বুম, এন্ড্রয়েড মোবাইল থাকতে হবে এবং এর ব্যবহার জানতে
হবে।
২. শুদ্ধ প্রমিত বাংলায় কথা বলতে হবে।
৩. মাইক্রফোন বা বুম ধরা জানতে হবে।
৪. লাইভে দাড়িয়ে আপত্তিকর শব্দপ্রকাশ বা দৃষ্টিকটু আচরন করা যাবে না
৫. পোশাকে রুচিশীল হতে হবে।
৬. লাইভে হাঁসা বা কাঁদা যাবে না। অর্থাৎ কোন ঘটনায় ইমোশনাল হওয়ার সুযোগ নেই