লালমাইয়ে শ্বশুর বাড়ি থেকে তরুণীর মরদেহ উদ্ধার পরিবারের দাবি হত্যা

স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ৪ মাস আগে

চৌদ্দগ্রামে মরিয়ম আক্তার ওরফে মারিয়া (২০) নামে এক তরুণীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গত শনিবার (২০ জানুয়ারি) সন্ধ্যা অনুমান ৭টার দিকে উপজেলার কাশিনগর ইউনিয়নের বারইয়া মসজিদ সংলগ্ন শ্বশুর বাড়ি থেকে এ মরদেহ উদ্ধার করে চৌদ্দগ্রাম থানা পুলিশ। নিহত মরিয়ম পাশ্ববর্তী লালমাই উপজেলার ভূলইন দক্ষিণ ইউনিয়নের মগের কলমিয়া চেয়ারম্যান বাড়ির মজিবুর রহমান বাবুলের ছোট মেয়ে।
পরিবারসূত্রে জানা যায়, প্রায় দেড় বছর পূর্বে চৌদ্দগ্রাম উপজেলার কাশিনগর ইউনিয়নের বারইয়া গ্রামের মৃত আইয়ুব আলীর ছেলে সৌদি প্রবাসী ফারুক হোসেন (৩০) এর সাথে পারিবারিকভাবে বিয়ে হয় মরিয়মের। বিয়ের পর থেকে স্বামীর বাড়িতেই থাকতেন মরিয়ম। নিহত মরিয়মের পরিবার ও স্বজনদের দাবি মরিয়মকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে। মৃত্যুর পর মরিয়মের গায়ে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে বলেও জানান তারা। এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত চান নিহতের পরিবার।
নিহতের পিতা মজিবুর রহমান জানান, প্রতিদিনের ন্যায় শনিবার সন্ধ্যায় মেয়ের খোঁজখবর নিতে শ্বশুর বাড়ির ফোনে বারবার কল দিলেও কেউ রিসিভ করেনি। এক পর্যায়ে জামাই’র বড় বোন শিরিন ফোন রিসিভ করে জানান মরিয়ম বিষ খেয়েছে, কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে আছে। এই ঘটনা শোনার সঙ্গে সঙ্গেই হাসপাতালে গিয়ে দেখি কেউ নাই। পরে তাদের বাড়িতে গিয়ে দেখি মরিয়মের লাশ পড়ে আছে উঠানে। তিনি আরো জানান নিহত মরিয়মের স্বামীর বড় বোন শিরিন’কে পাশের বাড়িতে বিয়ে দেওয়ায় প্রতিনিয়তই সে বাপের বাড়ি আসতো এবং সেই কারণে মাঝেমধ্যে নিহত মরিয়মের সাথে ঝগড়া হতো শিরিন আক্তারের। এ ঘটনার সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে বিচার কামনা করেন তিনি।
ঘটনার বিষয়ে নিহতের শ্বাশুড়ি গণমাধ্যমকে জানান, মরিয়মের সাথে আমাদের ভালোই চলছিল সবকিছু। হঠাৎ কেন সে বিষ খাইলো, বিষের বোতল কোথায় পেল সেটাও জানিনা। মরিয়মের একটু সমস্যা আছে মাঝেমধ্যে সে হঠাৎ বেহুশ হয়ে যায় আবার ঠিক হয়ে যায়। তাকে মাটি দেওয়ার আগে তার বাবার বাড়িতেও গিয়েছি আমি।
এ বিষয়ে চৌদ্দগ্রাম থানার ওসি ত্রিনাথ সাহা জানান, মৃত্যুর সঠিক কারণ জানতে আমরা লাশ ময়নাতদন্তের জন্য মেডিকেলে পাঠাইছি। অনুসন্ধান কার্যক্রম অব্যাহত, ময়নাতদন্ত রিপোর্ট প্রাপ্তি সাপেক্ষে বলা যাবে বিস্তারিত। মেয়ের পরিবার লিখিত অভিযোগ দিলে আমরা আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।
মৃত্যুর পরদিন রবিবার (২১ জানুয়ারি) বাদ মাগরিব নিহত মরিয়মের বাবার বাড়ি মগের কলমিয়া মাদ্রাসার পাশে জানাযা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।