চৌদ্দগ্রামের অজপাড়া গাঁয়ে কোরআনের আলো ছড়াচ্ছে দারুচ্ছুনাত দীনিয়া মাদ্রাসা

স্টাফ রিপোর্টার
প্রকাশ: ৯ মাস আগে

কুমিল্লা শহর থেকে প্রায় ২৫ কিলোমিটার দক্ষিনে চৌদ্দগ্রাম উপজেলার ৫নং শুভপুর ইউনিয়নের পাশাকোট অজপাড়া গাঁয়ে কোরআনের আলো ছড়াচ্ছে দারুচ্ছুনাত দীনিয়া মাদ্রাসা।
মাদ্রাসাটি ২০১৮ সালে প্রতিষ্ঠা করেন অত্র ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আলমগীর কবির মজুমদার। স্থাপিত হয়ে অল্পদিনেই সারাদেশে খ্যাতি কুড়িয়েছে প্রতিষ্ঠানটি। দাখিল পর্যন্ত আলিয়া সাথে হিফজ্ ও নূরানী শাখা রয়েছে মাদ্রাসাটিতে। ৬০ জন শিক্ষক ৩০ জন কর্মচারীর সাথে ১৫০০ শিক্ষার্থী নিয়ে সগৌরবে এগিয়ে যাচ্ছে কোরআনের আলো ছড়িয়ে। এর মধ্যে নজর কেঁড়েছে হাজারো অভিভাবকদের।

গত ১৪মে রবিবার সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, মাদ্রাসাটি স্থাপিত হয়েছে মাত্র ৫ বছর আগে। অল্পদিনেই সুনাম কুড়িয়ে মাদ্রাসাটি জায়গা করে নিয়েছে হাজারো অভিভাবকের হৃদয়ে। সুবিশাল ভবন, নান্দনিক ক্যাম্পাস আর বিশাল খেলার মাঠ দেখলে সবারই মন জুড়ায়। সকাল দুপুর কোরআনের শুর, বিকালে মাঠে টুপি, পাঞ্জাবী পড়া ছাত্রদের খেলাধুলা আর হৈ-হুল্লুড়ে মেতে উঠে পুরো ক্যাম্পাস। মাদ্রাসার এমন দৃশ্য দেখে মন জুড়ায় অভিভাবক এবং পথচারীদের।
মাদ্রাসার শিক্ষক মো.মাহাদী হাসান (যাকে সবাই চান্দিনা হুজুর বলে ডাকে) তিনি বলেন, মাদ্রাসাটি যিনি প্রতিষ্ঠা করেছেন তিনি অনেক ভালো লোক। তার উপরে আল্লাহর রহমত আছে এই কারণেই মাদ্রাসাটি অল্প দিনে সুনামের সাথে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। আমরা শিক্ষক যারা এখানে আছি তারা সবাই খুব আন্তরিক, ছাত্রদের কে নিজের
সন্তানের মতো দেখাশোনা এবং স্নেহ করি।
মাদ্রাসার ছাত্র মো. ইসমাইল পাটোয়ারী বলেন, আমাদের মাদ্রাসার সকল শিক্ষক ভালো এবং অভিজ্ঞ। মাদ্রাসার পরিবেশটাও অনেক সুন্দর। এখানে শিক্ষার মান অনেক ভালো। হুজুররা আমাদের কে নিজের সন্তানের মতো দেখে। আমি ভালো আলেম হওয়ার জন্য এই মাদ্রাসায় ভর্তি হয়েছি আল্লাহ যেন আমার মনে আশা পূণ্য করেন।
শাহিদা আক্তার নামের একজন অভিভাবক বলেন, এই মাদ্রাসার পরিবেশ এবং শিক্ষার মান অনেক ভালো। তাদের নিয়ম শৃঙ্খলা গুলো আমার ভালো লেগেছে তাই আমার সন্তানকে এখানে ভর্তি করেছি।